CC News

রুবেলের সঙ্গী ঋতুপর্ণা ও পাওলি

 
 

image_72755_0বিনোদন ডেস্ক: ধর্ষণ আর খুনের অভিযোগে চৌদ্দ বছর জেল খেটে বাড়ি ফেরেন রুদ্র। দীর্ঘ কারাবাসের পর মুক্তি পেলেও, মুক্তি স্বাদ অনেকটাই তেতো মনে হচ্ছে তার কাছে। কারণ সব কিছুই তার কাছে অচেনা মনে হচ্ছে। স্ত্রী দামিনী, সন্তান এমন কি নিজের বাড়িটা পর্যন্ত। রুদ্রর অনুপস্থিতির সুযোগে দামিনীর আলাদা একটা জগৎ দাঁড়িয়ে গেছে। যেখানে কেবল তার সন্তান আর বসতভিটার স্থান রয়েছে। রুদ্র এখানে অযাচিত।

রুদ্র যে নিজেকে মানিয়ে নিতে চেষ্টা করেনি তা নয়। বরং দামিনীই রুদ্রকে আপন করে নিতে পারেনি। অসহ্য যন্ত্রণায় কাতর রুদ্র ফিরে যায় নিজের দেশে। সেখানে বন্ধুর বাড়িতে আশ্রয় নেয়। বন্ধুর নাম গোপাল, তার স্ত্রী উর্মিলা। সম্পর্কের রহস্য ক্রমশ ঘনীভূত হতে থাকে।
এমনই এক গল্প নিয়ে গড়ে উঠেছে ওপার বাংলার চলচ্চিত্র ‘পারাপার’। মতি নন্দীর ‘পুবের জানালা’ উপন্যাস থেকে এর চিত্রনাট্য তৈরি করা হয়েছে।
চলচ্চিত্রটির নাম পারাপার কেন? এমন প্রশ্নে জবাবে কলকাতার নির্মাতা সঞ্জয় নাগ জানান, রুদ্র নিজের ঘরে ঠাঁই করে নিতে না পেরে আশ্রয় নেয় বন্ধুর পরিবারে, তাই ছবিটির নাম ‘পারাপার’।
‘পারাপার’ ছবিটির প্রধান চরিত্র রুদ্র। এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশি অভিনেতা আহমেদ রুবেল। কলকাতার এতো এতো বিখ্যাত অভিনেতা থাকার পরও বাংলাদেশ থেকে আহমেদ রুবেলকেই কেন এই চরিত্রের জন্যে নেয় হলো, এমন প্রশ্নের উত্তরে পরিচালক বলেন, ‘অনেক দিন আগে বাংলাদেশে কাজ করতে গিয়ে রুবেলকে থিয়েটারে অভিনয় করতে দেখি। তখনই সিদ্ধান্ত নিই সুযোগ পেলে ওকে নিয়ে কাজ করবো।’
কলকাতায় এর আগে অনেকবার গেছেন রুবেল। তবে এবারই প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করার জন্যে গেলেন তিনি। এ সর্ম্পকে তিনি বলেন, ‘কাজ করতে গিয়ে টালিগঞ্জের শিল্পীরা আমাকে যেভাবে সহযোগিতা করছেন, তাতে আমি অভিভূত।’
ছবিটির প্রধান দুটি নারী চরিত্রে অভিনয় করছেন কলকাতার সাড়া জাগানো দুই অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেন এবং পাওলি দাম।  মতি নন্দীর উপন্যাসে দামিনী আর ঊর্মিলার দেখা না হলেও, ছবিতে ঋতুপর্ণা ও পাওলিকে এক সঙ্গে দেখা যাবে। সে হিসেবে এবারই প্রথম এক সঙ্গে কাজ করলেন এই দুই অভিনেত্রী।
সম্প্রতি ছবিটির শ্যুটিং শেষ হয়েছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শিগগিরই ছবিটি মুক্তি পাবে।
Print Friendly, PDF & Email