CC News

শীতে বন্ধ হবে চুল পড়া

 
 
Lifeঢাকা: শীতে মাথার তালু রুক্ষ ও ‍শুষ্ক হয়ে যায়। ফলে অন্যান্য সময়ের চেয়ে শীতে চুল পড়ে বেশি।এছাড়া মানসিক চাপ, খাবার ও অন্যান্য কারণে চুল পড়ে।
মানসিক চাপ: যারা বেশি মানসিক দুশ্চিন্তায় ভোগেন তাদের স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি চুল পড়ে। তবে মানসিক দুশ্চিন্তা কাটিয়ে উঠলে চুল আবার নতুন করে গজায়।
খাবার: খাবারের ঘাটতি থাকলেও চুল পড়ে যেতে পারে। দৈনিক খাদ্যতালিকায় শর্করা, আমিষ, ভিটামিনের অভাব হলে চুল পড়ে।
বংশগত কারণ: অনেকের বংশগত কারণে চুল পড়ে যেতে পারে।
অসুস্থতা: ম্যালেরিয়া, জন্ডিস, ডায়বেটিসসহ অন্যান্য জটিল রোগের কারণে চুল পরে। এক্ষত্রে অসুখ ভালো হলেও চুল আর গজায় না।
ওষুধ: ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় চুল পড়ে যায়।জন্মনিয়ন্ত্রণ, পেশার ও হরমোনের ওষুধ খেলে চুল পড়ে যায়।
তবে চুল পড়া নিয়ে দু:শ্চিন্তা না কর চুলের নিয়মিত বাড়তি যত্ন নিলে চুল পড়া বন্ধ হয়ে চুল হবে মসৃন ও ঝলমলে। বাংলামেইলের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো কিছু টিপস:
 চুলের গোড়ায় পুষ্টি যোগাতে নিয়মিত কুসুম গরম তেল দিন। চুলে তেল লাগানোর পর কমপক্ষে আধঘণ্টা রেখে তারপর শ্যাম্পু করুন। তাহলে চুলের রুক্ষতা দূর হয়ে চুল হবে ঝলমলে মসৃণ।
চুল পড়া রোধ করতে মাথার তালুতে নিয়মিত ম্যাসাজ করুন। তালুতে ম্যাসাজ করলে রক্তসঞ্চালন ভালো হয় হয় ফলে চুল পড়া কমে যায়।
 প্রতিদিন চুলের গোড়ায় মধু ও লেবুর রস ম্যাসাজ করে এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল পড়া কমবে সেইসঙ্গে নতুন চুল গজাবে।
শীতে প্রচুর পরিমানে ধনেপাতা পাওয়া যায়। চুলের গোড়ায় ধনেপাতা বেটে লাগালে চুল পড়া বন্ধ হয়। এছাড়া পিঁয়াজের রস মাথায় দিয়ে ১ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল হবে ঝলমলে ও মসৃন।
শীতে অনেকের চুল ফেটে যায়। চুল ফাটা রোধে মধু লেবুর রস, আমলকীর নির্যাস লাগালে চুল ফাটা বন্ধ হয়।
গরম ড্রায়ার ও আয়রন ব্যবহার করবেন না।
 বাইরে বের হলে মাথায় ক্যাপ,স্কার্ফ কিংবা ওড়না দিয়ে বের হবেন।ধূলাবালি ও রোদ থেকে চুল ভালো থাকবে।
তারপরও যদি কারও চুল পড়ে তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
Print Friendly, PDF & Email