CC News

শ্লীলতাহানী হয়ে উল্টো বিপাকে দিন মজুর পরিবার

 
 

Nirjatonবেলাল হোসাইন, চিলাহাটি (নীলফামারী): শ্লীলতাহানী হয়ে ও লোক লজ্জার ভয়ে মূখ খুলতে পারছে না গরীব অসহায় পরিবারটি। প্রভাবশালী মহলের চাপে একঘরে হওয়ার দাবি করেছে পরিবার প্রধান দিনমজুর শহুর আলীর।
জানা গেছে, দিনমজুর শহুর আলী পেটের দায়ে জীবিকার তাগিদে মজুরি খাটতে এলাকার বাহিরে যায় প্রায়শই। আর বাড়ীতে রেখে যায় তিন কন্যাসহ স্ত্রী সুমারী বেগমকে। ঘটনার বর্ণনার দিতে গিয়ে সুমারী বেগম বলেন, আমার স্বামী কাজের জন্য নোয়াখালী যায় বেশ কয়েকদিন পূর্বে। লম্পট খালেক ওরফে মেম্বার সেই সুযোগ পেয়ে আমার বাড়ীতে ঘুর ঘুর করে নানা অজুহাতে। সোমবার সন্ধ্যায় আমার বাড়ীতে এসে ঐ লম্পট মেম্বার আমাকে জাপটে ধরে আমার ইজ্জত হানীর চেষ্টা করে। আমি বাঁধা দিতে গেলে আমাকে ও আমার মেয়েগুলোকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় খালেক। ভয়ে আর আমি কিছু বলতে পারিনি। ঘটনা জানা জানি হয়েছে, এ বিষয়ে ধর্ষিতা সুমারী বেগম বলেন, মেম্বার আমাকে কারো কাছে মূখ খুলতে নিষেধ করেছে। সুমারীর মেজ মেয়ে এই প্রতিবেদককে বলে, ঐদিন সন্ধ্যার সময় মেম্বার (খালেক) এসে আমার মাকে জাপটে ধরে। আমি চিৎকার করতে ও কাঁদতে ধরলে, আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।এ ঘটনায় সুমারী বেগমের স্বামী শহুর আলী বলে, ঘটনার দিন আমি ছিলাম না। কাজের জন্য নোয়াখালী গেছিল্মা। ঘটনার দিন বাড়ীর পাশের আইনুল আমাকে রাত ১.০০টার সময় ফোন করে ঘটনার কথা জানায়। তাই তড়িঘড়ি করে আমি বুধবার)বাড়ীতে চলে আসি। আমি গরীব মানুষ। তাই তারা এরকম করছে। এই ঘটনার বিচার চাই আমি।
ঘটনা সূত্রে জানা যায়, চিলাহাটির অন্তর্গত ফুলবাড়ী খানকাপাড়ার গরুর পাইকার আমিনার রহমান ওরফে বাচ্চাউ-র ছোট ছেলে খালেক ওরফে মেম্বার গত সোমবার একই এলাকার দিনমজুর শহুর আলীর অবর্তমানে তার বাড়ীতে ঢুকে তার স্ত্রী তিন সন্তানের জননী সুমারী বেগমের শ্লীলতাহানী করে। এঘটনায় প্রভাবশালী মহলের চাপে তারা একঘরে হয়ে আছে। এই প্রতিবেদকের কাছেও ধর্ষিতা সুমারী বেগম মূখ খুলতে ভয় পাচ্ছে। তবু তারা ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ঘটনার বিচার দাবী করছে প্রশাসনের কাছে।

Print Friendly, PDF & Email