CC News

দিনাজপুর প্রবেশমুখে রোডমার্চে হামলা

 
 

DSC00311সিসি নিউজ: গণজাগরণ মঞ্চের রোড মার্চে ফের হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার নীলফামারীর সৈয়দপুরে জিআর মোড়ে সন্ধ্যায় পথসভা শেষে দিনাজপুরে যাওয়ার পথে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দশমাইল কাছাকাছি গণজাগরণের গাড়িবহর পৌঁছালেই গাড়ি লক্ষ্য করে হাতবোমা ও ঢিল ছোঁড়া হয়। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ঘটনার পরপরই শাহাবাগে এক প্রতিবাদ মিছিল করেন গণজাগরণ মঞ্চের নেতা কর্মীরা। এর আগে শুক্রবার সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে গণজাগরণের রোডমার্চ বগুড়ায় ঢুকলে সন্ধ্যায় রোড মার্চের গাড়ি লক্ষ করে কয়েক দফা হাতবোমা নিক্ষেপ করা হয়েছিল। যাতে আহত হয়েছিলেন ৫ জন।

দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. এমরান এইচ সরকার বলেছেন, গত ১১ মাসে আমরা আমাদের ২২ জন সহযোদ্ধাকে হারিয়েছি। প্রয়োজনে ২২ লাখ মানুষ জীবন দিতে প্রস্তুত তবুও বাংলাদেশকে যুদ্ধাপরাধমুক্ত করে ছাড়বো। তিনি বলেন, গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন কোন সুনির্দিষ্ট মানুষের জন্য না। এই আন্দোলন বাংলাদেশের সকল মানুষের আন্দোলন। অবিলম্বে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্য করে দেশকে রাজাকারমুক্ত করতে হবে।
তিনি গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় দিনাজপুর ইনষ্টিটিউট মাঠে দিনাজপুরসহ সারাদেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার প্রতিবাদে জনসভাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, নব্বই এর নির্বাচনের পর থেকে জামায়াত দেশকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র বানানোর পরিকল্পনা করছে। যখন আমরা একটি শান্তিপূর্ণ লংমার্চ নিয়ে মানুষের কাছে যাচ্ছি তখন রাস্তায় পদে পদে আমাদের গাড়ী বহরের উপর সন্ত্রাসী হামলা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, যাঁরা স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছে, আমাদের মা-বোনদের ইজ্জত লুণ্ঠন করেছে তাদের বিচার এ বাংলার মাটিতে অবশ্যই করতে হবে। তিনি বলেন, যাঁরা বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে বিশ্বাস করে তারা কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় খুশি হয়েছে। বাংলাদেশে ২ থেকে ৩ শতাংশ লোক জামায়াতকে সমর্থন করে বাকি সব মানুষ তাদের সমর্থন করে না। তিনি বলেন, ঢাকা থেকে লংমার্চ বের হওয়ার পরে শেরপুরে একবার বগুড়ায় আরেকবার এবং সর্বশেষ দিনাজপুরের রাণীরবন্দর পার হয়ে আমাদের গাড়ী বহরে সন্ত্রাসীরা হামলা করে। তিনি আরো বলেন, যে স্বাধীনতার সময় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর সাথে আতাঁত করে ৩০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছে। তাঁরা আমাদের এই দেশকে একটি সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র বানাতে চায়। কিন্তু আমরা তাদের সেই চেষ্টা সফল হতে দিব না।
দিনাজপুর গণজাগরণ মঞ্চের আহ্বায়ক মোঃ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গণজাগরণ মঞ্চ জেলা শাখার সমন্বয়ক রেজাউর রহমান রেজু, শ্লোগান কন্যা লাকি আক্তার প্রমুখ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন জেলা গণজাগরণ মঞ্চের নেতা সুলতান কামাল উদ্দিন বাচ্চু। এর আগে ডা. এমরান এইচ সরকার ঢাকা থেকে বগুড়া, রংপুর, সৈয়দপুর, দশমাইল হয়ে রাত সোয়া ৮টায় দিনাজপুরে এসে পৌঁছেন। দিনাজপুরে রাত যাপন করে রবিবার সকালে তিনি ঠাকুরগাঁয়ে গড়েয়ার গোপালপুরে সংখ্যালঘু এলাকা পরিদর্শন করবেন।

Print Friendly, PDF & Email