CC News

সৈয়দপুরে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার

 
 

Nil Picসিসি নিউজ: গণজাগরন মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেন, দেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ফিরিয়ে আনতে জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে সারাদেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। পিছিয়ে নেই সৈয়দপুরের মানুষ। সকল যুদ্ধপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্যকর না হওয়া পর্যন্ত গণজাগরণ মঞ্চের এ আন্দোলন চলবে।
সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার প্রতিবাদে গণজাগরন মঞ্চের ঢাকা-ঠাকুরগাঁও রোডমার্চ চলাকালে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নীলফামারীর সৈয়দপুরের গণজাগরণ মঞ্চের আয়োজনে শহরের জিআরপি মোড়ে অনুষ্ঠিত পথসভায় তিনি এ কথা বলেন।
সৈয়দপুর গণজাগরণ মঞ্চের উদ্যোক্তা কুতুব উদ্দিন আলোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথসভায় উপস্থিত ছিলেন ছাত্র ইউনিয়নের অগ্নিকন্যা লাকী আক্তার, ছাত্রমৈত্রীর আবুল কালাম আজাদ, ছাত্র আন্দোলনের মনিরুজ্জামান ও মামুনুল হক, সৈয়দপুরের আ’লীগ নেতা আকতার হোসেন বাদল, মোজাম্মেল হক, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বখতিয়ার কবির, কমিউনিষ্ট পার্টির সভাপতি নুরুজ্জামান জোয়ার্দার, সেক্রেটারী দেলোয়ার হোসেন জাভিস্কো, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার একরামুল হক, উদিচীর কাজী আবুল হাসনাত, রেল শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শেখ রোবায়তুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সানজিদা বেগম লাকি, পৌর কাউন্সিলর কাজী জাহানারা বেগম, নারী নেত্রী কামরুন নাহার ইরা, ওয়াকার্স পার্টির নেতা রুহুল আলম মাষ্টার, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি এ্যাড. কল্লোল রায়সহ অনেকে।
পথসভায় ডা. ইমরান আরো বলেন, দলমত নির্বিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে জামায়াত-শিবির ও যুদ্ধাপরাধীমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। মনুষ্যত্ববোধ নিয়ে সংখ্যালঘুদের পাশে দাঁড়াতে হবে। এ সময় উপস্থিত মানুষ হাত তুলে তাঁর আহবানে সাড়া দেন। বগুড়ায় গণজাগরণ মঞ্চের গাড়িবহরে বোমা হামলার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন এবং জড়িতদের শাস্তি দাবি করে তিনি বলেন, দীর্ঘ ১১মাসের আন্দোলনে ২২জন সহকর্মীকে হারিয়েছি। গণজাগরণ মঞ্চের ছয় দফা দাবি আদায়ের জন্য এখনও ২২ লাখ তরুণ প্রস্তুত। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো। পথসভা শেষে রোডমার্চ দিনাজপুরের উদ্দেশে যাত্রা করে।

Print Friendly, PDF & Email