CC News

অভিযানের নামে মানুষ খুন ও গুম করছে আ.লীগ

 
 

khaledaসিসি নিউজ: বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বলেছেন, ৫ জানুয়ারি প্রহসনের নির্বাচন করেছে। জনগণ তা ঘৃণাভরে প্রথ্যাখান করেছে। আর এর মাধ্যম প্রমাণ হয়েছে গায়ের জোড়ে ভোট করা যায়না। অস্ত্রের জোড়ে ক্ষমতায় থাকা যায়না। সরকার জনগণের ভোটে নয়, অস্ত্রের জোড়ে ক্ষমতায় এসেছে।

রাজধানীর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির গণসমাবেশে তিনি একথা বলেন। এর আগে সমাবেশ মঞ্চে ৪টা ৩৩ মিনিটে ওঠেন।

বিএনপি নেত্রী পত্রিকার কাটিং দেখিয়ে বলেন, ভোট কেন্দ্র কুকুর রয়েছে। কুকরের দুঃখ আমার যদি হাত থাকতো তাহলে আমি ভোট দিতাম। সরকার কলঙ্কিত। এই সরকার জনগরণর নয়। জনসমর্থন নেই তাদের।

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এ গণসমাবেশ প্রমাণ করেছে জনতা কাদের পক্ষে।  জনসমর্থন যাচাই করতে হলে অবিলম্বে নির্বাচন দিন।

খালেদা জিয়া বলেন, এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারেনা। জনগণ ১৫৩ আসনে ভোট দিতে পারেনাই। আর যে ১৪৭ আসনে ভোট হয়েছে সেসব ভোটকেন্দ্রে মাত্র ৫ শতাংশ ভোট পড়েছে। নির্লজ্জ্ব সরকারকে বলবো নির্বাচন দিয়ে জনগণের জনপ্রিয়তা যাচাই করুন। জনবিচ্ছিন্ন হয়ে সারাদেশে খুন, গুম চলছে। আর এর সঙ্গে আওয়ামীলীগের লোকরাই জড়িত।

আওয়ামীলীগের লোক ও পুলিশ দিয়ে যৌথবাহিনী অভিযানের নামে খুন ও গুম করছে। এসর বন্ধ করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান তিনি।

মঞ্চে খালেদার উপস্থিতিতে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমেদ, এলডিপির চেয়ারম্যার কর্ণেল অলি আহমেদ।

মঞ্চে ১৮ দলের অনেক নেতা উপস্থিত থাকলেও অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীর কাউকে দেখা যায়নি।

আগের সমাবেশগুলোতে মঞ্চের সামনে ব্যানার-ফেস্টুন হাতে জামায়াতের অনেক কর্মীকে দেখা গেলেও আজ তাঁদের উপস্থিতি নেই।

Print Friendly, PDF & Email