CC News

গঙ্গাচড়ায় জামায়াতের তান্ডব: ঘর বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

 
 

Agun-2
গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের গঙ্গাচড়ায় মসজিদে রাজনৈতিক আলোচনা বন্ধের প্রতিবাদ করা পাঁচ পরিবারের ঘর বাড়িতে আগুন, মারপিট ও লুটপাট করেছে জামায়াত শিবির সমর্থক। অভিযোগ ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসীর। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার আলমবিদিতর ইউনিয়নের পশ্চিম মনিরাম এলাকায় গত শনিবার সকালে। এ ঘটনায় ওই পরিবারের ৮থেকে ১০ গুরুতর আহত হয়েছে। ঘটনাটিকে এখন ভিন্ন খাতে প্রভাহিত করার ষড়যন্ত্র চলছে বলে বিশ্বস্ত সূত্র জানায়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার আলমবিদিতর ইউনিয়নের পশ্চিম মনিরাম গ্রাম জামাত শিবিরের আখড়া বলে পরিচিত। দীর্ঘ দিন থেকেই তারা সুযোগ পেলেই সংখ্যালঘু পরিবার সহ তাদের পরিপন্থি মনোভাবিদের উপর নির্যাতন চালায়। এ কারনে তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে চায় না। শুধু তাই নয় প্রায় সময়ই মসজিদের ভিতর রাজনৈতিক আলোচনা করেন উমরে খাতাব মসজিদের  ঈমাম মাওলানা আঃ হামিদ।  গত শুক্রবার ঈমাম সাহেব জুম্মার ফরজ নামাজের পূর্বে রাজনৈতিক ও সরকার বিরোধী বক্তব্য রাখলে ওই এলাকার শফিকুল ইসলাম প্রতিবাদ জানালে পরদিন ঈমাম সাহেবের হুকুমে  জামাত শিবির সমর্থক মান্নান, আলামত. নান্নু, চাঁন, সালাম, গফুরসহ অনেকেই একত্রিত হয়ে শফিকুলের পরিবারের উপড় হামলা চালায়। বাঁধা দিলে বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে এবং বাড়িতে থাকা আসবাবপত্র ভাংচুর, টাকা,স্বর্ণ, গরু, ছাগল লুট ও নারীদের শ্লীলতা হানি করে। এতে শফিকুলসহ তার ভাই  রফিকুল, অফিসার, আঃ কফুর, ছফুর আলী ভাতিজা মফুজার ফেরদৌস এবং শাহানাজ ও মায়া গুরুতর আহত হয়। তারা এখন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিকৎসাধীন রয়েছে।  পরে খবর পেয়ে দমকল বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় শফিকুল বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে। অপরদিকে এ ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার তোরজোর শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যেই প্রচার করা হয়েছে মসজিদের জমি সংক্রান্ত বিরোধের কারনে এ ঘটনা ঘটেছে।  তবে ঘটনার দোষ সম্পূর্ন অস্বিকার করেন জামায়াত শিবির সমর্থক সামাদ এবং আঃ কাহার। এ ঘটনার সত্যতা রয়েছে উল্লেখ করে ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল হক জানায়, যে ঘটনা ঘটেছে তা ৭১ এর ঘটনাকে মনে করিয়ে দেয়।
এদিকে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল করিম জানায়, তদন্ত সাপেক্ষে আইন গত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email