CC News

ইজতেমার নিরাপত্তায় হেলিকপ্টার টহল

 
 

RAB (h)ঢাকা : বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম গণজমায়েত ৪৯তম বিশ্ব ইজতেমার সার্বিক নিরাপত্তা দিতে সচেষ্ট রয়েছে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা র‌্যাব,পুলিশ,সেনা বাহিনী ও বিজিবির সদস্যেরা। আকাশে পালাক্রমে নিয়মিত টহল দিচ্ছে র‌্যাবের তিনটি হেলিকপ্টার।

পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা দায়িত্বে রয়েছে প্রায় ২০ হাজারের অধিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশ ও র‌্যাবের ১৪টি পর্যবেক্ষণ টাওয়ার সচেষ্ট রয়েছে।

অন্যদিকে বেলা ১২টার দিকে পুলিশের একটি দল সুজন নামের এক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ইজতেমায় আসা এক মুসল্লির মানিব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্ট করলে উপস্থিত মুসল্লিরা তাকে ধরে পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেন।

ইজতেমা ঘুরে দেখা গেছে, অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মাঠ জুড়ে ৬০টির অধিক সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

ইজতেমা ময়দানের ১৬০ একর এলাকা জুড়ে বিশাল সামিয়ানা টানানো রয়েছে।

আজ দুই পর্বের ইজতেমার প্রথম পর্বের প্রথম দিন। এখানে উপস্থিত হয়েছে ৩২টি জেলার মুসল্লিরা। তারা অবস্থান করছেন ৪০টি খিত্তায়।

খিত্তা নম্বরসহ জেলাগুলো হল, গাজীপুর (১-২), ঢাকা (৩-১২), সিরাজগঞ্জ (১৩), ফরিদপুর (১৪), নরসিংদী (১৫), কিশোরগঞ্জ (১৬), রাজবাড়ী (১৭), শরীয়তপুর (১৮), নাটোর (১৯), শেরপুর (২০), দিনাজপুর (২১), হবিগঞ্জ (২২), রংপুর (২৩), লালমনিরহাট (২৪), গাইবান্ধা (২৫), জয়পুরহাট (২৬), রাজশাহী (২৭), সিলেট (২৮), চাঁদপুর (২৯), ফেনী (৩০), চট্টগ্রাম (৩১), বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি (৩২), বাগেরহাট (৩৩), কুষ্টিয়া (৩৪), নড়াইল (৩৫), চুয়াডাঙ্গা (৩৬), যশোর (৩৭), ভোলা (৩৮), বরগুনা (৩৯) ও ঝালকাঠি (৪০)।

আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্ব শেষ হবে ২৬ জানুয়ারি। মাঝে চারদিন বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় পর্ব ৩১ জানুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ২ ফেব্রুয়ারি।

Print Friendly, PDF & Email