CC News

দেশে নিম্নস্তরের কুলীনতন্ত্র চলছে

 
 
Amaj Uddin
ঢাকা: গণতন্ত্রের নামে দেশে নিম্নস্তরের কুলীনতন্ত্র চলছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ।
শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সাউথ এশিয়া ইয়থ ফর পিস অ্যান্ড প্রসপারিটি সোসাইটির উদ্যোগে আয়োজিত ‘বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক অবস্থা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।
এমাজউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘বর্তমান শাসন ব্যবস্থার সঙ্গে জনগণের সম্পৃক্ততা নাই। গণতন্ত্রকে অর্থপূর্ণ করতে হলে মানুষের অধিকার ও শাসনকারীদের ন্যায়-নিষ্ঠা প্রতিষ্ঠা করতে হবে। গণতন্ত্রকে অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করার জন্য বর্তমান সরকার ৫ জানুয়ারির নির্বাচন করেছে।’
তিনি বলেন, ‘২০০৮ সালে যেখানে ৮৭ ভাগ মানুষ ভোট দিয়েছিল সেখানে নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী ৫ জানুয়ারিতে ভোট দিয়েছে ১৮ ভাগ মানুষ। যারা একটি ভোট না পেয়েও সংসদ সদস্য হলেন তাদের সংসদে কথা বলা মানায় না।’
অনুষ্ঠানে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক ড. পিয়াস করিম বলেন, ‘বর্তমান সরকার গণতন্ত্রের ওপর আঘাত করে স্বৈরাচারে পরিণত হয়েছে। কিন্তু স্বৈরাচারদের পতন বার বার ঘটেছে এবং ঘটবে। স্বৈরাচারদের ধাক্কা দিয়ে ফেলে না দিলে তারা ক্ষমতা থেকে নামে না। তাই রাজনৈতিক দলগুলোসহ সকল স্তর থেকে প্রয়াস সৃষ্টি করে এ সরকারের পতন ত্বরান্বিত করতে হবে।’
লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘বর্তমান সরকারকে নিয়ে কোনো ভাল মন্তব্য করা সম্ভব নয়। কোনো পেপার পত্রিকাতেও সরকারকে নিয়ে কোনো ভাল মন্তব্য নেই। জনবিচ্ছিন্ন নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছে সরকার।’
সাউথ এশিয়া ইয়থ ফর পিস অ্যান্ড প্রসপারিটি সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুল হকের সঞ্চালনায় গোলটেবিল বৈঠকে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম, বিশিষ্ট কলামিস্ট সাদেক খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, পদার্থ বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী, ঢাবি শিক্ষক সাইফুদ্দিন আহম্মেদ প্রমুখ।
Print Friendly, PDF & Email