CC News

বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের বিচারবর্হির্ভুত ভাবে হত্যা করা হচ্ছে -নীলফামারীতে মির্জা ফখরুল

 
 

Nil. photo-24.01.14সিসি নিউজ: বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন বর্তমানে দেশে বিচারবর্হির্ভুত হত্যাকান্ড বেড়ে চলেছে। বিরোধী দলের নেতাকর্মী ও বিভিন্ন মামলার আসামীদের বিচারের আওতায় না এনে তাদের আত্মপক্ষ সমর্থনের কোন সুযোগ না দিয়ে নির্বিচারে গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে। যা পৃথিবীর কোন দেশে এ ধরণের ঘটনার নজির নেই। গত তিন মাসে ২৯৪ জন মানুষকে গুম করা হয়েছে না  হয় হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেন এরই ধারাবাহিকতায় একতরফা নির্বাচনের পর পরেই নীলফামারীতেও আমাদের দু’জন কর্মীকে হত্যা করা হয়েছে। নীলফামারীতে নুরের গাড়ী বহরে হামলা মামলার প্রধান ও তিন নং আসামী বিএনপি নেতা গোলাম রব্বানী  ও ছাত্রদল নেতা আতিকুল ইসলাম আতিককে কয়েকদিন আগে বিচারবর্হির্ভুত ভাবে  হত্যা পর রাস্তার ধারে লাশ ফেলে রাখা হয়েছে। তিনি বলেন আজ আমি নিহত গোলাম রব্বানীর অবুঝ তিন শিশু ও আতিকের মায়ের সঙ্গে দেখা করেছি। তাদের জিজ্ঞাসা ছিল কি অপরাধ ছিল তার বাবা ও সন্তানের। তাই এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় সুষ্ট ও নিরপেক্ষ তদন্ত করে দোষীদের বিচার করার দাবী জানান তিনি।  একই সঙ্গে এমপি নুরের গাড়ী বহরে হামলা মামলার আসামী  নিখোঁজ মহিদুল , ছকিমুদ্দীন , আব্দুল মালেক ও আব্দুল খালেকের সন্ধান দাবী করেন।
আজ শুক্রবার বিকেলে নীলফামারী জেলা বিএনপি কার্যালয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এক বলেন। জেলা বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক মিজানুর রহমান শামীমের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব সামসুজ্জামান। মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবদলের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফরহাদ হোসেন আযাদ, ছাত্রদলের ভাইস প্রেসিডেন্ট কামাল হোসেন, জেলা বিএনপি’র যুগ্ন আহবায়ক জহুরুল ইসলাম, মীর সেলিম ফারুক, রাজ্জাকুল ইসলাম রাজা, মোস্তফা হক বাচ্চু, বিএনপি নেতা আব্দুল গফুর সরকার, সাইফুল্ল্যাহ রুবেল, ছাত্রদল নেতা আব্দুস সালাম বাবলা প্রমুখ।
মির্জা ফখরুল বলেন এদেশে এখন গণতন্ত্রের লেশ মাত্র নেই। দেশ আজ স্বৈরশাসন ও বাকশালে পরিণত হয়েছে।  জোর করে বন্দুক ও পিস্তুল দিয়ে এ সরকার ক্ষমতায় থাকার স্বপ্ন দেখছে।  জোর করে এর  আগেও কেউ ক্ষমতায় থাকতে পারেনি এ সরকারেরও পারবে না। তিনি বলেন জনগন ও গনতন্ত্র থেকে বিচ্ছিন্ন এ সরকার রাজনৈতিক ভাবে দেওলিয়া হয়ে গেছে। রাজনৈতিক ভাবে  যখন পাচ্ছে না তখন বন্ধুক ও পিস্তুল দিয়ে বিরোধী দলের রাজনীতি দমন করার চেষ্টা করছেন।  তিনি আরো বলেন  ভোট মানে উৎসব কিন্তু ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে কোন উৎসব হয়নি হয়েছে সন্ত্রাস। আর এ সন্ত্রাস হয়েছে আইনশৃংঙ্খলা বাহিনী দিয়ে। বিনা ভোটের বাক্স ছিনতাই করে আওয়ামীলীগ প্রার্থীদের জয়ী করা হয়েছে।  তিনি বলেন ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে গোটা দেশে ২ থেকে ৫ ভাগ ভোট পড়েছে।  ভোট কেন্দ্রে ভোটার ছিল না ছিল কুকুর বসে। তাই গোটা পৃথিবীর কাছে প্রমান হয়েছে ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন কোন নির্বাচন ছিল না। আন্তজার্তিক ভাবে এই নির্বাচনের কোন গ্রহণ যোগ্যতা নেই।  ফকরুল বলেন ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে যেহেতু ৯৫ ভাগ মানুষ ভোট দেয়নি তাই বর্তমান সরকার বৈধ সরকার হতে পারে না। তিনি বলেন অবিলম্বে মানুষের মনের ভাষা বুঝে নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন তা না হলে ইতিহাস আপনাদের ক্ষমা করবে না।
এর আগে মির্জা ফখরুল ইসলাম জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব সামসুজ্জামানের বাসায় নিহত বিএনপি নেতা গোলাম রব্বানীর তিন শিশু ও ছাত্রদল নেতা আতিকের মা এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করে তাদের সমবেদনা জানান।

Print Friendly, PDF & Email