CC News

বিরামপুরে টিকা দিবসের কার্যক্রম পরিদর্শনে স্বাস্থ্য উপসচিব

 
 

EPI (25.1.14)
একলাছুর রহমান, বিরামপুর (দিনাজপুর) : শনিবার বিরামপুরে এম.আর টিকা কার্যক্রম পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের উপসচিব হুমায়ুন কবির। তিনি বিরামপুর পৌর এলাকার কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয় , কলেজিয়েট সর:প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ দিওড় ইউনিয়নে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টিকা কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এ সময় তার সফর সঙ্গি ছিলেন বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: পরিতোষ চন্দ্র গুপ্ত ও আ: কাফি মন্ডল। অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয় জিবি সভাপতি পারভেজ কবির, প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম, শিল্পকলা একাডেমীর নির্বাহী সদস্য মাহমুদুল হক মানিক, বিরামপুর প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মোরশেদ মানিক, সহ-সভাপতি ওয়াহেদুল ইসলাম রিপন, সহ-সম্পাদক আজহার ইমাম, উত্তরাঞ্চল ফেডারেল সাংবাদিক পরিষদের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাংবাদিক সমিতির সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

স্বাস্থ্য উপসচিব হুমায়ুন কবির মিডিয়া কর্মীদের জানান, হাম ও রুবেলা রোগ প্রতিরোধ এবং পোলিও মুক্ত রাখতে এদুটি টিকা শিশুদের সুরক্ষা করবে। পূর্বে যে সব শিশু এমআর বা হামের টিকা পেয়েছে অথবা হাম বা রুবেলা রোগে আক্রান্ত হয়েছে সেসব শিশুদেরও ক্যাম্পেইনে টিকা দেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, বিরামপুর উপজেলার পৌর এলাকা ও দিওড় ইউনিয়নের কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এম.আর টিকা কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে পাশ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার পুটিমারা ও শালখুরিয়া ইউনিয়নে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টিকা কার্যক্রম পরিদর্শন করবেন। স্বাস্থ্য বিভাগকে এ কার্যক্রমে সহযোগিতা করায় তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকলের প্রতি ধন্যবাদ জানান। তিনি স্বাস্থ্য কর্মীদের কর্মকান্ডে সন্তোষ প্রকাশ করে সর্তকতা অবলম্বনে নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, বিরামপুর উপজেলায় ৪৩ হাজার শিশুকে হাম ও রুবেলা রোগ প্রতিরোধ ও পোলিও মুক্ত রাখতে টিকা দেয়া হবে। এর মধ্যে ৯ হাজার শিশুকে বিরামপুর পৌরসভা টিকা দিবে। ২৫-৩০ জানুয়ারী পর্যন্ত ৩২৩ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে এবং ১-১৩ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত ১৬৮টি স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে এ কার্যক্রম চলবে। প্রতিটি কেন্দ্রে ২জন দক্ষ কর্মীর পাশাপাশি ৩ জন স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email