CC News

দিনাজপুরে ধর্ষণের শিকার ৩ স্কুল ছাত্রী হাসপাতালে

 
 

দিনাজপুর: দিনাজপুরে ধর্ষণের শিকার হয়ে তিন স্কুলছাত্রী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এই ঘটনায় দুটি মামলা হয়েছে। নবাবগঞ্জ উপজেলার স্কুল ছাত্রী ৬ বছরের শিশু কন্যাকে বাড়িতে ওই এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে বাবুল ধর্ষণ করে। শিশুটির চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসলে বাবুল পালিয়ে যায়। গত বুধবার তাকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। নবাবগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে শিশু কন্যার পিতা মামলা দায়ের করেছে। আসামি পলাতক রয়েছে।

এদিকে, বীরগঞ্জ উপজেলায় গত মঙ্গলবার বীরগঞ্জের পাল্টাপুর ইউপির মধুবনপুর গ্রামের স্কুলছাত্রীকে (৮) বাড়ির পাশের ভুট্টা খেতে একই গ্রামের মো. ইছাহাক আলী ইছা ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে স্কুল ছাত্রী কাঁদতে কাঁদতে বাড়িতে এসে পরিবারকে জানায়। এরপর তাকে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে প্রেরণ করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয়েছে। ধর্ষণ অভিযোগে মো. ইছাহাক আলী ইছাকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। বীরগঞ্জ থানার ওসি আবু আককাছ আহম্মদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অপর ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার বীরগঞ্জের পলাশ বাড়ী ইউনিয়নের। উক্ত ইউনিয়নের ভান্ডারী গ্রামের ৭ম শ্রেণির ছাত্রি (১৩) বিকাল ৫টার দিকে পাশে গড়েয়া হাটে কাপড় কিনতে যাচ্ছিল। এ সময় একই এলাকার নুরু মিয়ার ছেলে সুরুজ (৩০) তাকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে মঙ্গলবার তাকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।  এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ থানার ওসি আবু আককাছ আহম্মদ বলেন, কেউ এ বিষয়ে কোন অভিযোগ করেননি।

Print Friendly, PDF & Email