CC News

দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

 
 

দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরে মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও কাল্পনিক কল্প কাহিনীর সংবাদ সম্মেলনের  প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন চিরিরবন্দর উপজেলার আন্ধারমুহা গ্রামের নিপেন্দ্র নাথ রায়ের ছেলে উদয় কুমার রায়। তিনি চলতি মাসের ১১ তারিখে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে তাঁকে ও তার পরিবারকে জড়িয়ে চিরিরবন্দর উপজেলার কোর্টপাড়ার জনৈক মৃতঃ অনাদি চন্দ্র সরকারের স্ত্রী বুলবুলি রাণী যে মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন সংবাদ সম্মেলন করেছেন তা আদৌ সত্য নয় বলে দাবী করেন।
মঙ্গলবার (২১ মার্চ) দুপুরে নিমতলাস্থ দিনাজপুর প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবী করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, একজন যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী এভাবে মিথ্যা কথা বলতে পারেন, তা আমাদেরকে বিস্মৃত ও অবাক করেছে। মুক্তিযোদ্ধারা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে তিনি বলেন, বুলবুলি রাণী সরকার সংবাদ সম্মেলনে যা বলেছেন তা যদি তার স্বামী অনাদি চন্দ্র সরকার বেচেঁ থাকতো তাহলে লজ্জায়, ঘৃণায় ও ক্ষোভে স্ত্রীর সঙ্গে সংসার রাখতো কিনা তা আমাদের জানা নেই। মুক্তিযোদ্ধার কথা বলে সকলের অনুকম্পা ও সহানুুভুতি বুলবুলি রাণী সরকার দেশবাসীর কাছে যে ভাবে চেয়েছে, তাতে সত্যকে সম্পূর্ন আড়াল করার অপচেষ্টা ছাড়া কিছুই নয়।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি প্রকৃত সত্য তুলে ধরে বলেন, আমার পিতা ৫নং আব্দুলপুর ইউনিয়নের আন্ধারমুহা গ্রামের নিপেন্দ্র নাথ রায় ২০০১ সালে চিরিরবন্দর মৌজার মরহুম আব্দুল মজিদ সরকারের নিকট হতে ১১১ খতিয়ানের ৮৯৫৩ দাগের ০৫ শতক জমির একটি প্লট রেজিষ্ট্রিমুলে ক্রয় করেন। অপরদিকে ১নং বিবাদীর স্বামী মৃত অনাদী চন্দ্র সরকার জনৈক বুলবুল হোসেন সরকারের নিকট দক্ষিণ অংশের ০৬ শতকের একটি প্লটটি ক্রয় করেন। দক্ষিনাংশের প্লটটির রাস্তা দক্ষিন দিকে ৫ ফিট এবং উত্তর অংশের প্লটের রাস্তা উত্তর দিকে ৫ফিট করেই প্লট মালিকরা রাস্তার জন্য ছেড়ে প্লট বিক্রি করেন।
বুলবুলি রাণী সরকার ২০০১ সালে প্লট ক্রয় করে পাকা বাড়ি নির্মাণ করেন। আমাদের প্লটটি তখনও বাড়ি নির্মাণ না করায় বুলবুলি রানী সরকারের ভাড়াটিয়ারা আমাদের প্লটের উপর দিয়েই যাতায়াত করত। ২০১১ সালে আমার পিতা বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু করলে বুলবুলি রাণী সরকার অন্যায় ও অযৌক্তিকভাবে আমাদের জমির পশ্চিমাংসে উপর ৫ফিট রাস্তা দাবী করেন।
এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান মেম্বার রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বিভিন্ন শ্রেনীপেশার ব্যক্তিবর্গ তার এ অন্যায় দাবীকে সমর্থন না করায় বূলবুলি রাণী সরকার থানার সরনাপন্ন হন। থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনিছুর রহমান কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে আমাদেরকে বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু করার নির্দেশ দিলে আমরা গত ২ ফেব্রুয়ারী পূর্ণরায় বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু করি। কিন্তু নির্মাণ কাজ শুরু করলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে নির্মাণকাজে বাধা দেন বুলবুলি রানী সরকারের লোকজন এবং তার ছেলেকে চিৎকার করে বলেন, যা করার আমি করছি তুমি ছবি তুলো! এ কথা বলে সে আমার উপর ঝাপিয়ে পড়ে এবং মোবাইল ফোনে ভিডিও করতে থাকে। আমি বুলবুলি রাণী সরকারের কাছ হতে আত্মরক্ষার জন্য সরে যাওযার সময় সে আমার গলা টিপে ধরে এবং তার ছেলে নয়ন সরকার ছবি তুলতে থাকে। এ অবস্থায় আমার ছোট ভাই আমাকে রক্ষা করতে গেলে বুলবুলি রানী সরকার ইট দিয়ে ঢিল ছুড়লে আমার নাক ও মুখে আঘাত লাগে ফলে আমার নাকের মধ্য অংশে লেগে ফেটে গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম হয়।
পববর্তীতে একটি জাতীয় দৈনিকে “দিনাজপুরে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারকে পথে নামানোর চক্রান্ত” শিরোনামে একটি সংবাদটি প্রকাশিত হয়। কিন্তু আমার প্রশ্ন, আমার পিতার ক্রয়কৃত জমি দিয়ে রাস্তা না দিলে তারা কিভাবে পথে নামছেন। রাস্তা ছাড়া জমি কেনার খেসারত আমরা কেন দিব? বুলবুলি রানী সরকার রাস্তা না পাওয়ার কারণে যদি পথে বসে সেজন্য দায়ী সে নিজেই।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, এলাকার কতিপয় গুটিকয়েক কুচক্রি-মহলের ইন্ধনে বুলবুলি রানী সরকার আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য, চাঁদাবাজি, ভাড়াটিয়ার বাড়িতে ঢুকে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ করেছে অথচ ভাড়টিয়া বীরেশ চন্দ্র রায় থানায় বা কোথাও বাড়ি লুটপাটের অভিযোগ করেননি। শুধুমাত্র মামলার আর্জি ও সংবাদ সম্মেলনে বুলবুলি রানী সরকার ওই দাবী করেন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বুলবুলি রানীর হাত হতে তার পরিবারকে রক্ষা করতে ও সত্য-মিথ্যার বেড়াজাল ছিন্ন করে সত্য তুলে ধরতে সাংবাদিকদের প্রতি জোর দাবী জানান।

Print Friendly, PDF & Email