CC News

সাবেক সংসদ সদস্য মারুফ সাকলানের দাফন সম্পন্ন

 
 

সিসি নিউজ: নীলফামারী-৪  (সৈয়দপুর- কিশোরীগঞ্জ) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য কর্ণেল (অবঃ) এ এ মারুফ সাকলান মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) এ ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স ৭৩ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী এক ছেলে এক মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
মঙ্গলবার বাদ যোহর ঢাকা সেনানিবাসে প্রথম জানাযা এবং সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় বেলা তিনটায় দ্বিতীয় জানাযা শেষে বিকেল ৫টায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ঢাকাস্থ্য বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
মরহুমের পারিবারিক সুত্র জানায়, এ এ মারুফ সাকলান ১৯৪৪ সালের ৩ মে নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলার বাজে ডুমুরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। তিনি ওই গ্রামের মরহুম আইনুদ্দিন সাকলানের বড় ছেলে। কর্নেল (অব.) এ এ মারুফ সাকলান পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমির প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত একজন সামরিক কর্মকর্তা ছিলেন। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন অনুসারী। সামরিক বাহিনীর চাকরি থেকে অবসর গ্রহণের পর তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। ১৯৮৯ সাল থেকে নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের উপদেস্টা ছিলেন।
কর্নেল (অব.) এ এ মারুফ সাকলান ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরীগঞ্জ আংশিক) আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নবম সংসদে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন তিনি। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন।
মারুক সাকলানের মৃত্যুতে নীলফামারী জেলা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে আসে।

Print Friendly