CC News

ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান

 
 

খেলাধুলা ডেস্ক: চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল। আগে ব্যাটিংয়ে নামা পাকিস্তান ৩৩৮ রানের পাহাড় গড়ার পর আলোচনায় চলে আসে ২০০৩ বিশ্বকাপের স্মৃতি। সেবার দুর্দান্ত খেলে ফাইনালে আসা ভারতের বিপক্ষে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩৫৯ রান করেছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপরই  ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইন হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে অজিদের সামনে। ১৪ বছর পর আইসিসির ইভেন্টের আরেকটি ফাইনালে একই পরিণতি বরণ করতে হলো টিম ইন্ডিয়াকে। এবার প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া নয়; পাকিস্তান।

আজ রবিবার লন্ডনে হাইভোল্টেজ ফাইনালে ভারতকে ১৮০ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জয় করে পাকিস্তান।

লন্ডনের কেনিংটন ওভালে টসে জিতে পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ে পাঠান বিরাট কোহলি। ফখর জামান ও আজহার আলির মধ্যকার সেঞ্চুরি জুটির ওপর ভর করে মজবুত ভিত পায় সরফরাজের দল। এরপর অন্যান্যদের দৃঢ়তায় শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩৩৮ রানের পাহাড় গড়ে পাকিস্তান। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে মোহাম্মদ আমিরের বোলিং তোপে ভারতীয় ব্যাটিং লাইনের কোমড় ভেঙে যায়। সেখান থেকে আর মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি টিম ইন্ডিয়া। ৩০.৩ওভারে ১৫৮ রানেই গুটিয়ে যায় বিরাট কোহলির দল।

ভারতের হয়ে যা একটু লড়াই করেন হার্দিক পান্ডিয়া। সাত নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৩ বলে ৪টি চার ও ৬টি ছক্কায় সাহায্যে ৭৬ রানের দর্শনীয় ইনিংস খেলেন এই স্টাইলিশ ব্যাটসম্যান। শিখর ধাওয়ান ২১ এবং যুবরাজ সিং ২২ রান করে আউট হন। রোহিত শর্মা (০), বিরাট কোহলি (৫), এমএস ধোনি (৪), কেদার যাদবরা (৯) ব্যাট হাতে চরম ব্যর্থ হন।

পাকিস্তানের হয়ে আমির সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন। এছাড়া হাসান আলি ও শাদাব খান নেন দুটি করে উইকেট।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালের আগে আলোচনায় ছিল ভারতের টপ-অর্ডার বনাম পাকিস্তান পেস বোলিং। কেননা পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই ভারতের টপ-অর্ডার ব্যাটিং এবং পাকিস্তানের পেস বোলিং অ্যাটাক সেরা পারফরমেন্সই প্রদর্শনই করেছে। ভারতের টপ-অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা ও অধিনায়ক বিরাট কোহলি রানের ফুলঝুড়ি ফুটিয়েছেন।

কিন্তু সব হিসেব নিকেশ ভুল প্রমাণ করে আজ যেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ‘ভুতে’ ধরেছে! আর এই ভুতই হচ্ছে পাকিস্তানের বোলিং লাইন-আপ।

এর আগে লন্ডনের কেনিংটন ওভালে টসে জিতে পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ে পাঠান বিরাট কোহলি। ফখর জামান ও আজহার আলির মধ্যকার সেঞ্চুরি জুটির ওপর ভর করে মজবুত ভিত পায় সরফরাজের দল। এরপর অন্যান্যদের দৃঢ়তায় শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩৩৮ রানের পাহাড় গড়ে পাকিস্তান।

ভারতের বিপক্ষে আগে ব্যাট করতে নেমে এটাই পাকিস্তানের সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর।  এর আগে শুরুতে ব্যাট করে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে তাদের সর্বোচ্চ দলীয় রান ছিল ৩২৯।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, বিরাট কোহলি, যুবরাজ সিং, মহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, ভুবনেশ্বর কুমার ও জাসপ্রিত বুমরাহ।

পাকিস্তান একাদশ: আজহার আলি, ফখর জামান, বাবর আযম, মোহাম্মদ হাফিজ, শোয়েব মালিক, সরফরাজ আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ আমির, শাদাব খান, হাসান আলি ও জুনায়েদ খান।

এবিএন

Print Friendly, PDF & Email