CC News

মুক্তামণির অস্ত্রোপচার সম্পন্ন

 
 

ঢাকা: মুক্তামণির ডান হাতের রক্তনালীর টিউমার অস্ত্রোপচার শেষ হয়েছে। এখন তার ড্রেসিং চলছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।  তবে ঠিক কয়টায় অস্ত্রোপচার শেষ হয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। মুক্তামণির শারীরিক অবস্থা সম্পর্কেও জানা যায়নি।

শনিবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে মুক্তামণিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের দ্বিতীয় তলার অপরাশেন থিয়েটারে নেয়া হয়। সকাল ৯টার দিকে শুরু হয় অপারেশন।

এর আগে, শুক্রবার বিকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, এখন পর্যন্ত সব ঠিক আছে। শনিবার সকাল ৮টায় মুক্তামণির হাতে অপারেশনের বিষয়ে মেডিকেল বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অপারেশনের জন্য গঠিত ১৩ সদস্যের টিমের সবাই উপস্থিত থাকবেন। সফলভাবে অপারেশনের জন্য সবাইকে দোয়া করতেও বলেছেন তিনি।

গত মঙ্গলবার বায়োপসি রিপোর্ট পাওয়ার পর চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন মুক্তামণির রক্তনালিতে টিউমার ধরা পড়েছে। তার অপারেশন হবে। এতে যথেষ্ট ঝুঁকি রয়েছে। জীবনরক্ষার জন্য মুক্তামনির হাতও কাঁটতে হতে পারে।

তারা বলেন, এখন পর্যন্ত ভালো লক্ষণ যে মুক্তামণির শরীরে ক্যানসার ছড়ায়নি। তবে অপারেশনে রক্তপাতের আশঙ্কা রয়েছে। ১০ ব্যাগ রক্ত প্রস্তুত রাখা হবে।

উল্লেখ্য, সাতক্ষীরার কামারবাইশালের মুদি দোকানদার ইব্রাহিম হোসেনের দুই জমজ মেয়ে হীরামণি ও মুক্তামণি। জন্মের দেড় বছর পর থেকে মুক্তামণির সমস্যা শুরু। প্রথমে হাতে টিউমারের মতো হয়। ছয় বছর বয়স পর্যন্ত টিউমারটি তেমন বড় হয়নি। কিন্তু পরে তা ফুলে কোলবালিশের মতো হয়ে যায়। বিছানাবন্দি হয়ে পড়ে মুক্তামণি।

সাতক্ষীরা, ঢাকাসহ বিভিন্ন জায়গায় নানা চিকিৎসা চলে। তবে ভালো হয়নি বা ভালো হবে, সে কথাও কেউ কখনো বলেননি। গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে খবর প্রকাশ, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল আলোচনায় আসে মুক্তামণির খবর।

গত ১১ জুলাই মুক্তাকে ভর্তি করানো হয় বার্ন ইউনিটে। তারপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তামণির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। ওই দিনই ঢাকা মেডিকেলে মুক্তামণির চিকিৎসার জন্য ডা. সামন্ত লাল সেনের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email