CC News

কেজিতে ১০ টাকা কমিয়ে তিন পণ্য বিক্রি করবে টিসিবি

 
 

সিসি ডেস্ক: ক্রেতার নাগালে নেই ভোগ্যপণ্য। নানা অজুহাতে বেড়েই চলেছে দাম। এমন অবস্থায় ঈদ-উল-আযহাকে সামনে রেখে নায্যমূল্যে তিনটি পণ্য বিক্রি করবে টিসিবি। ভোজ্যতেল, মশুর ডাল ও চিনি নিয়ে আগামী রোববার থেকে মাঠে নামবে টিসিবির প্রায় ২,৮৫৩ জন ডিলার। এছাড়া ১৮৫টি ট্রাকেও থাকবে পণ্য।

সংস্থাটির মুখপাত্র হুমায়ন কবীর জানান, ২৭-৩১ আগস্ট পর্যন্ত পাঁচদিন খোলা বাজারে পণ্য বিক্রি করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দামের উত্তাপ থেকে ক্রেতাকে স্বস্তি দিতেই এমন উদ্যোগ নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ব এই প্রতিষ্ঠান।

পণ্য তিনটির মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে বাণিজ্যমন্ত্রণালয়। একজন ভোক্তা ৫৫ টাকায় কিনতে পারবেন এককেজি চিনি। এ জন্য রাষ্ট্রায়ত্ব এই প্রতিষ্ঠানকে কেজিতে ভর্তুকি গুণতে হবে প্রায় নয় টাকা। আর খোলা বাজারে এখন প্রতিকেজি চিনির খুচরা মূল্য ৬০ থেকে ৭০ টাকা। খুচরা বাজারে ৯০-৯৫ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে মাঝারি মানে এককেজি মশুর ডাল। তবে, টিসিবি বিক্রির মূল্য ৭০ টাকা। এ জন্য কেজিতে ভর্তুকি দিতে হবে ১১ টাকা। আর একলিটার সয়াবিন তেলের বিক্রি মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৮৫ টাকা। তবে, বাজার মূল্য ১০২ থেকে ১০৬ টাকা। এই পণ্যের জন্য টিসিবিকে লিটারপ্রতি ভর্তুকি গুণতে হবে প্রায় ১৫ টাকা।

একজন ডিলার উত্তোলন করতে পারবেন ২০০-৭০০ কেজি পর্যন্ত চিনি, ২০০ থেকে ১০০০ কেজি পর্যন্ত মশুর ডাল এবং ২০০ থেকে ৪০০ লিটার পর্যন্ত সয়াবিন তেল।

টিসিবি ডিলার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, বাজার মূল্য থেকে কমপক্ষে ১০ টাকা কেজিতে দামের পার্থক্য না হলে ভোক্তার কাছে টিসিবির পণ্যে চাহিদা থাকে না। যৌক্তিক মূল্য নির্ধারণ তাগিদ দেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email