CC News

প্রেমিকার সাথে দেখা করতে গিয়ে গণপিটুরি শিকার প্রেমিক

 
 

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় গনপিটুনিতে বাঘা হাসপাতালে কাতরাচ্ছে শাহ আলী (২৩) নামে এক প্রেমিক। প্রেমিকার বাড়িতে দেখা করতে গিয়ে গনপিটুনির শিকার হয় শাহ আলম। আশংকাজনক অবস্থায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। সে উপজেলার তেঁথুলিয়া গ্রামের কালু ড্রাইভারের ছেলে। রোববার (২৪-০৯-১৭) সন্ধার পর উপজেলার তেপুকুড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর প্রেমিকা পুর্ণিমা ও তার বাবা শহিদুল ইসলামকে রাতেই আটক করে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, দুই মাস পূর্বে উপজেলার তেপুকুড়িয়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের বিবাহিত মেয়ে পুর্ণিমার (১৬) সাথে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে শাহ আলী (২৩)। মাঝে মধ্যে ওই মেয়ের বাবার বাড়িতে গিয়ে দেখা করতো শাহ আলী। সর্বশেষ রোববার সন্ধ্যার পর পুর্নিমার বাড়ির পাশে পুকুরের ধারে কথা বলার সময় স্থানীয়দের নজরে এলে গ্রামের নৈয়বের ছেলে হস্ত, আমেরের ছেলে মজিবর, মজিদের ছেলে খালেক, মন্টুর ছেলে আশরাফুল, আফজের ছেলে নাসির, নজিরের ছেলে খালেক ও আসকানের ছেলে ডাব্লু সহ আরো কয়েকজন প্রেমিক শাহ আলমকে বেধড়ক মারপিট শুরু করে। এ সময় পুকুরে ঝাপ দিয়ে আতœ রক্ষার চেষ্টা করে শাহ আলী। পরে পুকুর থেকে তুলে আবারো মারপিট করে তারা। এতে অজ্ঞান হয়ে পড়ে শাহ আলম । খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। সোমবার হাসপাতালে গিয়ে কথা বললে চিকিৎসক সঞ্জয় পাল জানান শঙ্কামুক্ত হলেও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে সময় লাগবে ।
পূর্ণিমা জানায়, শাহ আলীকে রক্ষা করতে গিয়ে আমাকেও মারধর করেছে ওইসব লোকজন। প্রেমের সম্পর্কে শাহ আলী তার বাবার বাড়িতে দেখা করতে আসতো। সেদিনও এসে কথা বলছিল। ঘটনার আগে শাহ আলী নামে জানতাম না। মনিগ্রাম এলাকার সিরাজের ছেলে আকাশ বলে জানতাম।
অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহমুদ বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন।

Print Friendly, PDF & Email