CC News

কুড়িগ্রামের মেধাবী আশিকুরের শিক্ষা জীবন অনিশ্চিত

 
 

অনিরুদ্ধ রেজা, কুড়িগ্রাম: আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারনে লেখাপড়া কি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অদম্য মেধাবী আশিকুরের। চলতি বছর এইচএসসি পরীক্ষায় মানবিক বিভাগে এ-প্লাস পেয়ে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে ‘খ’ ইউনিটে ভর্তির যোগ্যতা অর্জন করলেও স্বপ্নের বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে।
দিনমজুর পরিবারে জন্ম নেয়া আশিকুর রহমান রুবেলের স্বপ্ন কি থেমে যাবে অর্থাভাবে। সে জেলার উলিপুর উপজেলার পান্ডুল ইউনিয়নের পান্ডুল গ্রামের দিনমজুর শহিদুর রহমানের পুত্র। ২ শতক জমিই পরিবারটির স্বম্বল। তাতে ২ টি টিনের ছাপড়া তুলে বিধবা মা, স্ত্রী ও ২ ছেলেমেয়ে নিয়ে আশিকুরের বাবা শহিদুরের সংসার। কাকডাকা ভোরে ছুটে চলা নিরন্তন সংগ্রামী এ দিনমজুর স্বপ্ন দেখেন ছেলেকে লেখাপড়া শিখিয়ে অনেক বড় করবেন। কিন্তু আজ যেন সব স্বপ্নই থেমে যেতে বসেছে। পারবো কি ছেলেকে উচ্চ শিক্ষিত করতে? বলেই অঝোরে কেঁদে উঠেন। তার ছলছল চোখের দিকে তাকিয়ে উপস্থিত সবাই অশ্রুশিক্ত হন। কিন্তু কেউ কি এগিয়ে আসবে দিনমজুর পরিবারে জন্ম নেয়া মেধাবী আশিকুরের জন্য। কেউ এগিয়ে আসলে হয়তো পূরণ হবে দিনমজুর বাবা শহিদুরের স্বপ্ন। আর উচ্চ শিক্ষিত হবার স্বপ্ন পূরণ হবে আশিকুরের। হৃদয়বানরা এগিয়ে আসলে হয়তো একদিন ঘুচে যাবে সব অভাব-অনটন। পরিবারটি হয়তো দাড়াতে পারবে মাথা উচু করে।
আশিকুর রহমান রুবেল ২০১৫ সালে মানবিক বিভাগে এসএসসি পরিক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ ৪.৭৮ পেয়ে উর্ত্তীর্ণ হয়। তারপর পাঁচপীর ডিগ্রী কলেজ থেকে চলতি বছর মানবিক বিভাগ থেকে এইচ এসসি পরিক্ষায় জিপিএ-৫ সবাইকে চমকে দেয়।
দিনমজুর শহিদুর জানান, পরিবার ও রুবেলের লেখাপড়ার খরচ যোগাতে আমি অক্ষম হয়ে পড়েছি। তিনি সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহায়তা চেয়ে বলেন, আমার ছেলের উজ্জল ভবিষ্যৎ যেন অর্থাভাবে নষ্ট হয়ে না যায়।

Print Friendly, PDF & Email