CC News

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪০টি কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক চুরি

 
 

দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের পরিসংখ্যান বিভাগের ডিজিটাল ল্যাব থেকে বিভাগীয় চেয়ারম্যানের ৪০টি কম্পিউটারের প্রয়োজনীয় হারডিক্স ও যন্ত্রাংশ চুরি হয়ে গেছে। এ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ে। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. মো. সাফিউল আলম বাদী হয়ে আজ ,শনিবার দুপুরে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. মো. সাফিউল আলম জানান, আজ শনিবার সকাল পৌনে ৮টার সময় নিরাপত্তা কর্মকর্তার কাছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ চুরির বিষয়টি অবগত হয়েছেন। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সিজার লিষ্টের মাধ্যমে ড, এম.এ.ওয়াজেদ ভবনের বিজ্ঞান অনুষদের পরিসংখ্যান বিভাগের ডিজিটাল ল্যাব এর ৪৩৬ নম্বর রুমে বিভাগীয় চেয়ারম্যানের ৪০টি কম্পিউটারের হারডিক্স ও কিছু যন্ত্রাংশ নেই বলে জানান। তাৎক্ষনিকভাবে ল্যাবের দায়িত্বে কর্মকতা ড,উত্তম কুমার মজুমদার ডিজিটাল ল্যাব অনুসন্ধান করে দেখতে পান হাটডিস্ক,র‌্যাম,প্রসেসর,সহ অন্যান্ন যন্ত্রাংশ এবং সিসি ক্যামেরার ভিডিআর রের্কডডিং যন্ত্রপাতি নিয়ে যায়।
এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন, কোতয়ারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(তদন্ত) ফখরুল ইসলাম। তিনি বলেন, কম্পিউটারগুলো সাজানোই রয়েছে। শুধু বিভাগীয় চেয়ারম্যানের ৪০টি কম্পিউটারের হারডিক্স কে বা কারা খুলে নিয়ে গেছে। সাথে কিছু যন্ত্রাংশও খোয়া গেছে।
বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে তা বলা যাবে কিভাবে ঘটেছে এই ঘটনা।
এদিকে এতো নিরাপত্তার সত্বেও কিভাবে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের পরিসংখ্যান বিভাগের ডিজিটাল ল্যাব থেকে বিভাগীয় চেয়ারম্যানের ৪০টি কম্পিউটারের প্রয়োজনীয় হারডিক্স ও যন্ত্রাংশ চুরি হয়ে যায় তা নিয়ে ব্যাপক রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।
দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে নতুন ভিসি এবং সাবেক ভিসি’র মধ্যে দ্বন্দ্বে বিভক্ত হয়ে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং শিক্ষার্থীরা।
এনিয়ে উভয়ের মধ্যে একে অপরের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন, মানববন্ধন,হামলা-পাল্টা হামলা ও মামলার ঘটনাও ঘটেছে। এ ঘটনাকে পুঁটি করে কোন পক্ষ একে অপরকে দোষারোপ করার জন্য ফায়দা লুটতে চুরির নাটক সাজিয়েছে কি না তাও পুলিশ এবং গোয়েন্দা বিভাগ খতিয়ে দেখছেন।

Print Friendly, PDF & Email