CC News

পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি পেলেন লালন

 
 

সিসি নিউজ, ১৫ ডিসেম্বর: ঠাকুরগাঁও জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দেওয়ান লালন আহমেদ ১৯৭৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলে জন্ম গ্রহন করেন । তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, তার পিতার নাম মরহুম মোঃ নুরুল ইসলাম দেওয়ান । তার মাতার নাম মরহুমা রওশন আরা বেগম। ঠাকুরগাও সুগার মিলস হাই স্কুল হতে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাশ করে ভর্তি হন ঢাকার সুনামধন্য নটরডেম কলেজে । নটরডেম কলেজ হতে কৃতিত্বের সাথে এইচএসসি পাশ করেন । এরপরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন । ২০০৫ সালে ২৪ তম বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে পুলিশ ক্যাডারে যোগদান করেন । দেশে বিদেশে বিভিন্ন প্রশিক্ষনে অংশগ্রহন করেছেন ।তিনি সহকারী পুলিশ সুপার ময়মনসিংহ, সহকারী পুলিশ সুপার মুন্সিগঞ্জ , সহকারী পুলিশ সুপার শিল্প পুলিশ গাজীপুর হিসেবে কর্মরত ছিলেন , ২০১২ সালের জুন মাসে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি লাভ করে সহঃ অধিনায়ক হিসেবে চট্রগ্রাম আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে যোগদান করেন ।২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারীতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন আইভরিকোষ্টে ডেপুটি কমান্ডার হিসেবে বাংলাদেশ ফর্মড পুলিশ ইউনিট এর নেতৃত্ব দেন ।এক বছরের শান্তিরক্ষা মিশন সমাপ্ত করে তিনি জাতিসংঘ পদক অর্জন করেন । ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে তিনি মিশন থেকে ফিরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, রেলওয়ে জেলা সৈয়দপুরে যোগদান করেন এবং ২০১৬ এর আগষ্টে ঠাকুরগাঁও জেলাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে যোগ দেন । গত ১৪ ডিসেম্বর তিনি পদোন্নতি পান , স্বরাস্ট্র মন্ত্রনালয়ের প্রজ্ঞাপনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থেকে ৯৬ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে পুলিশ সুপার (এসপি) করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ কথা জানানো হয়েছে। জনাব দেওয়ান লালন আহমেদ বাংলাদেশ পুলিশের সাইবার ক্রাইম এক্সপার্ট , তিনি মোবাইল ফোন কেন্দ্রিক অপরাধ নির্ণয়ে বিশেষ পারদর্শী । জনাব দেওয়ান লালন আহমেদ এর সাইবার ক্রাইম ডিটেকশনের প্রতি তার বিশেষ আগ্রহ ,কমিউনিটি পুলিশিং এর উপর তার গবেষনা কর্ম – Community Policing in Bangladesh: an Innovative Approach towards Social Peace and Stability পুলিশ স্টাফ কলেজ জার্নাল , ভলিউম -২ , ইস্যু -২ ,অক্টোবর ২০১৫ তে প্রকাশিত হয়েছে । অবসরে ও শিল্প চর্চাতে ব্যস্ত থাকেন । দেওয়ান লালন আহমেদ পুলিশের দায়িত্ব পালন করার পাশাপশি লেখালেখি ও শিল্প চর্চা করেন। তিনি একজন গীতিকার গান লিখছেন নিয়মিতই। —সম্প্রতি তার লেখা গান ‘বীরাঙ্গনা’ যা এদেশের মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে । এছাড়া ‘মা’ ‘বাবা’ এবং ১৫ আগস্টের শোক দিন নিয়ে লেখা ‘কাঁদো বাঙালি আজ কাঁদো সবাই’ ও একাত্তরের পঁচিশে মার্চের কালো রাতে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে পুলিশের প্রথম প্রতিরোধ নিয়ে গান ‘পচিশে মার্চ’ ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে । এছাড়া তার লিখা গল্প কবিতা প্রবন্ধ দেশের জাতীয় পত্রিকা সমুহে বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত হয়েছে । তিনি বাংলাদেশ পুলিশের মুখপাত্র ডিটেক্টিভ পত্রিকায় নিয়মিত লিখেন ।ব্লগার স্বীকৃতি হিসেবে প্রথম আলো ব্লগ থেকে পুরস্কার পেয়েছেন । তার গ্রন্থ ‘’বাবার চোখে মুক্তিযুদ্ধ ‘’ ২০১৬ সালের বইমেলায় সর্বত্র প্রশংসা কুড়িয়েছে । ২০১৭ সালের একুশের বইমেলাতে তার দ্বিতীয় গ্রন্থ ‘পুলিশের খেরোখাতা ‘ প্রকাশিত হয়েছে। স্ত্রী ফারজানা গাজী , পুত্র দেওয়ান তিওম নুর ও কন্যা সেহলা তায়িবাহ আশানা কে নিয়ে তার পরিবার ।

Print Friendly, PDF & Email