CC News

রাখাইনে গণকবরের সন্ধান

 
 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মিয়ানমার সেনাবাহিনী বলেছে, উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যের একটি গ্রামে এক গণকবরের সন্ধান পাওয়া গেছে এবং বিষয়টি নিয়ে তারা তদন্ত করে দেখছে। এই এলাকাতেই সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের উপর ব্যাপক নিধন চালিয়েছে বলে জাতিসংঘ অভিযোগ করেছে।

সেনা অভিযান শুরুর পর রাখাইনে মুসলিম গ্রামগুলো প্রায় খালি হয়ে গেছে। আগস্টে সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করলে এ পর্যন্ত সাড়ে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে।

মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের ফেসবুক পেজে সোমবার রাতে পোস্ট করা এক বিবৃতিতে বলা হয়, রাখাইন প্রদেশের রাজধানী সিত্তে থেকে ৩০ মাইল উত্তরের মংডু শহরের ইন দিন গ্রামে একটি গণকবরে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের মরদেহ পাওয়া গেছে। মংডু বর্তমান সহিংসতার কেন্দ্রবিন্দু। তবে ওই গণকবরে ঠিক কত সংখ্যক মরদেহ রয়েছে এবং নিহতরা কারা সে বিষয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য দেয়া হয়নি।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, নিরাপত্তা বাহিনীর কোনো সদস্য এই গণহত্যার সাথে জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে এ বিষয়ে কোনো কর্মকর্তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র ও মানবাধিকার সংস্থাগুলো অভিযোগ করেছে যে, মিয়ানমার পরিকল্পিতভাবে সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর জাতিগত শুদ্ধি অভিযান চালিয়েছে। ফরাসি দাতব্য সংস্থা ডক্টরস উইদাউট বর্ডার জানিয়েছে, সহিংসতা শুরুর প্রথম মাসে অন্তত ছয় হাজার ৭০০ রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়েছে।

এছাড়া আন্তজার্তিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ মঙ্গলবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলেছে, রাখাইনের উত্তরাঞ্চলে তুলাতলি গ্রামে ৩০ আগস্ট সেনাবাহিনী পরিকল্পিতভাবে কয়েক’শ রোহিঙ্গাকে হত্যা ও ধর্ষণ করেছে। সূত্র: দ্য স্ট্রেইট টাইমস

Print Friendly, PDF & Email