CC News

‘বিএনপি ভাঙতে বিএনপিই যথেষ্ট’

 
 

সিসি ডেস্ক, ২৯ জানুয়ারী: বিএনপি ভাঙতে সরকার নয়, বিএনপিই যথেষ্ট বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।সোমবার (২৯ জানুয়ারি) বিকালে রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ ও সদস্য পদ নবায়ন কর্মসূচির উদ্বোধন করে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি রাতের আঁধারে তাদের গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা পরিবর্তন করে নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে। এই দলকে চিনে রাখুন। এই দল আদালতের রায়ের আগেই বেগম জিয়া যদি দণ্ডিত হয়ে যায় তখন যেন সরকার দল ভাঙতে না পারে সেজন্য তাদের গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা পরিবর্তন করেছে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মামলা হামলার ভয় আওয়ামী লীগের নেই। কারণ আমরা অনেক মামলা জয় করে এসেছি। আর বিএনপি মামলা হামলার ভয়ে সংবিধান পরিবর্তন করে চলেছে। তাদের ইমানের জোর এতো হালকা। পাখির পালকের মতো হালকা তাদের ইমানের জোর। তাই ৭ ধারা বাদ দিয়েছে রাতের আঁধারে। গুড বাই ৭ ধারা।’

সড়কমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির সদস্য সংগ্রহের গঠনতন্ত্র পাল্টে গেছে। কি আদর্শ তাদের। এখন যখন মামলার রায় হবে মিও করে থলের বিড়াল বেরিয়ে এসেছে। রাতের অন্ধকারে কলমের খোচায় গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করেছে। কি অদ্ভুত তাদের গঠনতন্ত্র। তাদের নিজেদের ঘরেই গণতন্ত্র নেই। তারা যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে দেশে কি গণতন্ত্র থাকবে?’

কাদের বলেন, ‘বিএনপির ৭ ধারা অনুযায়ী কেউ দণ্ডিত হলে তাদের সদস্য হতে পারবে না। তাদের মনোনয়ন নিতে পারবে না। অর্থ আত্মসাত করলে তাদের সদস্য হতে পারবে না। কেউ উন্মাদ হলে তাদের সদস্য হতে পারবে না। তাই তারা ৭ ধারা পরিবর্তন করে নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে। তার মানে এসব হলেও তাদের সদস্য হতে পারবে।’

বিএনপির তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল ইসিতে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তারা ইসিতে তিন সদস্য প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছে। ইসি কি আদালতের রায় দিবে? নাকি ইসির কথায় দিবে?’

বিএনপি আদালতের বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে অভিযোগ করে মন্ত্রী বলেন, ‘ঘরে বসে প্রেস ব্রিফিং আর নালিশের ভান্ডারের দল বিএনপি। এখন উঠেপড়ে লেগেছে আদালতের বিরুদ্ধে। আমি চ্যালেঞ্জ করছি। আমরা এই মামলার রায় নিয়ে কোনও পাল্টাপাল্টি করছি না। বিএনপি আদালতের আদেশ মানে না। এটা কি পাল্টাপাল্টি নয়? এই সরকার কি মামলা দিয়েছে? মামলা এই সরকার দেয়নি। তাহলে পাল্টাপাল্টি হলো কীভাবে? তারা মিথ্যাচার করছে। আমরা বলেছি আদালত স্বাধীন। সরকার কি জানে রায় কি হবে? রায় দিবে আদালত।’

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘কেউ ক্ষমতা দেখাবেন না। কেউ যদি আওয়ামী লীগের সদস্য হতে না চায় জোর করবেন না। প্রয়োজনে বার বার যাবেন। ভাল আচরণ করতে হবে। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যেতে হবে। মিছিল মিটিং করে নির্বাচনের ভাল কাজ হবে না।’

ঢাকা ১০ আসনের সংসদ সদস্য শেখ ফজলে নূর তাপসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবাহন গোলাপ, ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email