CC News

ডিজিটাল সেবা এখন জনগণের দোরগোড়ায়

 
 

মেহেদী হাসান উজ্জল, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর): বর্তমান বিশ্ব্য তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর এক আধুনিক বিশ্ব্যে পরিণত হয়েছে। আমাদের চারপাশে যা আছে প্রত্যেক জিনিসের মধ্যে কোন না কোন ভাবে প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে উন্নত দেশগুলোর মধ্যে বর্তমানে অমাদের দেশেও সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন এনেছে। এই তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের সঙ্গে বদলে যাচ্ছে মানুষের চিন্তা, চাহিদা, অভ্যাস, প্রবণতাসহ নানা কার্যক্রম।

দেশের সরকার প্রধান তথা সরকারের দায়িত্ব হচ্ছে জনগণের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসাসহ সকল মৌলিক চাহিদার সু-ব্যবস্থা করা। বর্তমান চলমান বিশ্ব্যের সাথে সাথে অমাদের দেশেও সরকারের এসব দায়িত্ব সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যাপক ব্যবহার বেড়েছে। বর্তমান সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি যথাযথ ব্যাবহারের মাধ্যমে সরকারের প্রতিটি সেক্টরের কাজের গতিশীলতা ও দক্ষতা বেড়েছে অনেক গুনবেশী। সরকারি কর্মকান্ড সহজ ও স্বচ্ছ করতে, দ্রততার সাথে সিদ্ধান্ত প্রদান এবং অপ্রয়োজনীয় ব্যায় কমাতে যেমন তথ্য প্রযুক্তি প্রয়োজন। তেমনি গ্রামীন মানুষের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছানোর জন্য সরকারের গৃহীত নানামুখী পদক্ষেপের মধ্যে অন্যতম হয়ে উঠেছে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র।

সরকারী এক সুত্রে জানাগেছে গত ২০০৭ সালে পাইলট আকারে দেশের ২টি ইউনিয়ন পরিষদে কমিউনিটি ই-সেন্টার (সিইসি) স্থাপন করা হয়। এরপর এ দু’টি সিইসি’র অভিজ্ঞতার আলোকে ২০০৮ সালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের সহায়তায় স্থানীয় সরকার বিভাগ দেশের ৩০টি ইউনিয়নে সিইসি স্থাপন করে। ২০০৯ সালে ১ হাজার ইউনিয়ন পরিষদে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র (ইউআইএসসি) স্থাপিত করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশের ৪ হাজার ৫০১টি ইউনিয়ন পরিষদে একটি করে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র (ইউআইএসসি) একযোগে উদ্বোধন করেন। পরবর্তীতে সারাদেশে ৪ হাজার ৫১৬টি (ইউআইএসসি) স্থাপন করা হয়। দেশের সকল ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র স্থাপনের উদ্দেশ্য হল, ইউনিয়ন পরিষদকে একটি তথ্য ও জ্ঞান-ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা, যাতে এই সেবা প্রতিষ্ঠান ২০২১ সালের মধ্যে একটি তথ্য ও জ্ঞান-ভিত্তিক দেশ প্রতিষ্ঠায় যথাযথ ভূমিকা রাখতে পারে।

সোমবার দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের রাধিকাপুর গ্রামের ময়েজ উদ্দিনের স্ত্রী, ছেলের বউ ও ছোট্ট নাতিকে নিয়ে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্রে যাওয়ার পথে ঐ গ্রামের কৃষক জয়নালের মুখোমুখি হলে উৎফ্ল্লু চিত্তে তিনি বলেন, ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রে যাচ্ছি, ছেলে বিদেশ থাকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কম্পিউটারে কথা বলবো সে আমাদের সবাইকে দেখবে, আমরাও ছেলেকে দেখবো। জয়নাল জানান, সেও তথ্যসেবা কেন্দ্রে যাচ্ছে জমির একটা পর্চা তোলার জন্য একমাস আগে আবেদন করেছিলো। সেটা এসেছে বলে ডিজিটাল কল সেন্টার থেকে মোবাইল করেছিল। সে জন্য তারা সকলে এক সাথে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রে যাচ্ছেন।

বেতদিঘী ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ইউআইএসসি)’র উদ্যোক্তা রতন মার্ডী ও খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ইউআইএসসি)’র উদ্যোক্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, এলাকার মানুষকে গ্রামে বসেই বিভিন্ন ভাবে সেবা দিতে পেরে আমি অত্যন্ত খুশী। ইউনিয়নের মানুষও আমার উপর খুশী। এখানকার সেবার সব রকম কার্যক্রম আমি অব্যাহত রাখবো।

তিনি আরো বলেন, ইউআইএসসি’র সরকারি সেবা সমুহের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে জমির পর্চার আবেদন, জন্ম নিবন্ধন, মৃত্যু নিবন্ধন, নাগরিক সনদ, সকল প্রকার নাগরিক আবেদন, পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল, অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, অনলাইনে পাসর্পোর্টের আবেদন, ভিসা ভেরিফিকেশন ও ট্র্যাকিং, অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর আবেদন ও নবায়ন, অনলাইন সরকারি টেন্ডার আবেদন, সরকারি ফরম ডাউনলোড, জীবনবীমা, টেলিমেডিসিন, মোবাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরামর্শ, মোবাইলে কৃষি পরামর্শ, আইনী সহায়তা, বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ, ই-পূর্জি, মাটি পরীক্ষা, আর্সেনিক পরীক্ষা বিভিন্ন সরকারি ডকুমেন্ট প্রণয়নসহ সরকারি বিভিন্ন প্রচারণা কাজে এর গুরুত্ব অনেক।

অন্যদিকে বেসরকারি সেবা সমূহের মধ্যে উল্যেখযোগ্য হচ্ছে, ই-মেইল, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, মোবাইল ব্যাংকিং ( ডাচ বাংলা, বিকাশ লিমিটেড, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক), মোবাইল মেরামত, মোবাইলে টাকা লোড, দেশ-বিদেশে টেলিফোন, ভিডিও কনফারেন্সিং, ছবি তোলা, চাকুরি বিজ্ঞপ্তি দেখা ও অনলাইনে আবেদন, সামাজিক অনুষ্ঠানের ভিডিও রেকর্ডিং ও এডিটিং, সোলার সিস্টেম ম্যানেজম্যান্ট, কম্পোজ ও প্রিন্ট, স্ক্যান, ফটোকপি, ইত্যাদী। একই কথা বলেন বেতদিঘী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও উপাধক্ষ্য শাহ্ আব্দুল কুদ্দুষ।

ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরী বলেন, গ্রামীণ মানুষের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছানোর লক্ষ্যে সরকার ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র গঠন করেছেন। এর মূল উদ্যেশ্য হলো নানামুখী নাগরিক সেবা জনগণ যেন গ্রামে বসেই সহজে পেতে পারেন। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদসহ মোট ৮টি ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ইউআইএসসি) রয়েছে যা ক্রমেই গ্রামীণ জনগনের সেবা গ্রহণের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email