CC News

ফোরজি দুনিয়ায় আজ বাংলাদেশ

 
 

সিসি নিউজ, ১৯ ফেব্রুয়ারী: বহুল প্রতীক্ষিত চতুর্থ প্রজন্মের (ফোরজি) মোবাইল ইন্টারনেট সেবায় প্রবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আজ সোমবার থেকে দেশে চালু হতে যাচ্ছে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবা ফোরজি।

রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে সোমবার সন্ধ্যায় অপারেটরদের কাছে ফোরজি লাইসেন্স হস্তান্তর করবে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

রবি, বাংলালিংক, গ্রামীণফোন এবং টেলিটক এই চারটি মোবাইল অপারেটর ফোরজি সেবার লাইসেন্স নেয়ার অনুমতি পেয়েছে। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, লাইসেন্স পাওয়ার পরপরই মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো ক্রমান্বয়ে ফোর-জি সেবা চালু করবে।

এর আগে গত ২৯ নভেম্বর সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ঘোষণা দেয়, নতুন বছরে দেশবাসীর জন্য উপহার হতে যাচ্ছে ফোরজি। এই সেবার সংশোধিত গাইডলাইন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়ার পরেই এ ঘোষণা আসে।

লাইসেন্স হস্তান্তর অনুষ্ঠানে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার প্রধান অতিথি হিসেবে এবং চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদও উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

এর আগে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফোরজি ইন্টারনেট সেবা শুরুর পরিকল্পনা ছিল বিটিআরসির। সেক্ষেত্রে পরিকল্পনা ছিল ২০ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার ফোরজি সেবার লাইসেন্স হস্তান্তর করা হবে। কিন্তু পরে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় সোমবারই লাইসেন্স হস্তান্তর করা হবে এবং আজ থেকেই মিলবে চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবা বা ফোরজি।

লং টার্ম ইভোল্যুশনকে (এলটিই) চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক বা ফোরজি হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। এই নেটওয়ার্কে সেকেন্ডে ২ মেগাবাইট থেকে ৪০ মেগাবাইট পর্যন্ত গতিতে তথ্য আদান-প্রদান করা যাবে। ফোরজি হলো ইন্টারনেট গতির ক্ষেত্রে বড় একটি পর্যায়। তাত্ত্বিকভাবে এর ডাউনলোড গতি ১০০ এমবিপিএস থেকে ১ জিবিপিএস পর্যন্ত হতে পারে।

অন্যদিকে যে নেটওয়ার্ক সেকেন্ডে কমপক্ষে ২০০ কিলোবাইট তথ্য স্থানান্তর করতে পারে সেটাই থ্রিজি নেটওয়ার্ক। থ্রিজিতে অনলাইন টিভি, হাই ডেফিনেশন ভিডিও, ভিডিও কলিং, ভিডিও গেমসগুলো ডেভেলপ হয়েছে।

উদাহরণ দিয়ে বলা যায়, একজন থ্রিজি ব্যবহারকারী ইন্টারন্টে সেকেন্ডে ১৪ মেগাবাইট গতি পেলে তিনিই ফোরজিতে ১ জিবিপিএস পর্যন্ত গতি পাবেন।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, মোবাইল অপারেটরদের যে প্রস্তুতি রয়েছে তাতে আশা করছি লাইসেন্স দেওয়ার পরপরই দেশে ফোরজি সেবা চালু হয়ে যাবে। বিটিআরসি এ বিষয়ে সব ধরনের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত।

Print Friendly, PDF & Email