CC News

বদরগঞ্জে সরকারি বীজাগার কেন্দ্রগুলো তিন যুগ ধরে পরিত্যক্ত

 
 

আজমল হক আদিল, বদরগঞ্জ (রংপুর): তৎকালীন সরকারের আমলে সারাদেশের ন্যায় রংপুরের বদরগঞ্জে ১০ ইউনিয়নে গড়ে তোলা বীজাগার গুলো তিন যুগ ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। সূত্রমতে, দেশ স্বাধীনের আগে ও পরে এ উপজেলার ১০ ইউনিয়নে কৃষি সম্প্রসারণের জন্য দুর্যোগ মৌসুমে বীজ সংরক্ষণ, কৃষি তথ্য সরবরাহ, একজন উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তার অফিস ও আবাসন হিসেবে ওই বীজাগারগুলো গড়ে তোলা হয়েছিল। পরিতাপের বিষয় হলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কৃষি বিভাগের জায়গাগুলো উদ্ধারে ও সংস্কারে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। এ নিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন এলাকার কৃষকেরা। মঙ্গলবার(২৭ফেব্রুয়ারী) সরেজমিনে গিয়ে জানাগেছে, তিন যুগের বেশী সময় ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা ওই বীজাগার কেন্দ্রগুলোর দেয়াল ও ছাদ ধ্বসে পড়েছে। দরজা ও জানালা নষ্ট হয়ে গেছে। কয়েকটি কেন্দ্রের জায়গা এলাকার প্রভাবশালীরা দখলে নিয়ে নিজের কাজে ব্যবহার করছে। পরিত্যক্ত এসব কেন্দ্রের ভেতরে ঝোপঝাড়ে ভুতড়ে পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, কৃষি অফিসের এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তার সহযোগিতায় বীজাগার কেন্দ্রগুলোর জায়গা দখলে নিচ্ছে এলাকার প্রভাবশালীরা। এসব জায়গা উদ্ধারে মাঝে-মধ্যে লোক দেখানো কিছু পদক্ষেপ নিলেও রহস্যজনক কারণে তা থেমে যাচ্ছে। বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বুজরুক হাজিপুর এলাকার কৃষক মমিনুল ইসলাম বলেন এক সময় ইউনিয়ন বীজ কেন্দ্রগুলো থেকে কৃষকেরা আপৎকালে বীজ সংগ্রহ করা ছাড়াও কেন্দ্রগুলো থেকে কৃষি বিষয়ে নানা পরামর্শও পেতেন। কিন্তু বর্তমানে এগুলোর কার্যক্রম না থাকায় কৃষকেরা এসব সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ উপজেলার ১০ ইউনিয়নে খোঁজ নিয়ে জানা যায় একই চিত্র। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন বেদখল হওয়া জমি উদ্ধারে মামলাসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ইউনিয়ন বীজাগারের জরাজীর্ণ ভবনগুলো সংস্কারে মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email