CC News

নীলফামারীতে জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মেলন শুরু (ভিডিও)

 
 

সিসি নিউজ, ১০ মার্চ: সংস্কৃতির আলোয় সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদী উচ্চারণে নীলফামারীতে শুরু হয়েছে তিন দিন ব্যাপী জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মেলন। নীলফামারী হাই স্কুল মাঠে ৩৭তম বার্ষিক এ অধিবেশন আয়োজন করেছে জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ। এবারে সম্মেলনে সারা দেশের সাত শতাধিক শিল্পী, সংগঠক ও সংস্কৃতিকর্মী অংশ নিয়েছে।
বোধনসঙ্গীতের মধ্যদিয়ে শুক্রবার বিকেল ৫টায় সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদের সভাপতি সনজীদা খাতুন, সাধারন সম্পাদক বুলবুল ইসলাম। এরপর মঞ্চে প্রদীপ প্রজ্বলন, আশীর্বানী, আবৃত্তি, সঙ্গীত, নৃত্যানুষ্ঠান ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশিত হয়। প্রায় ৫ সহস্রাধিক দর্শক উপভোগ করেন এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের চিত্রকর্মের প্রদর্শনীর পাশাপাশি সম্মেলনে স্থান পেয়েছে পরিষদের শাখাগুলোর এ যাবৎকাল পর্যন্ত পরিচালিত কার্যক্রমের উপস্থাপনা। বার্ষিক অধিবেশন উপলক্ষে যথারীতি প্রকাশিত হয়েছে রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টির নানা দিক নিয়ে বিশিষ্টজনদের লেখা প্রবন্ধের সংকলন ‘সঙ্গীত সংস্কৃতি’।
আজ শনিবার ২য় দিন ‘মানবিক সমাজ গঠন’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। ড. আতিউর রহমান মূল প্রবন্ধ পাঠ করবেন। আলোচক হিসেবে থাকবেন অধ্যাপক শহিদুল ইসলাম ও অধ্যাপক দেবীপ্রসাদ রায়। সন্ধ্যায় থাকছে প্রদীপ প্রজ্বলন, আবৃত্তি, সঙ্গীত, নৃত্যানুষ্ঠান ও জাতীয় সঙ্গীত। শেষ দিনে গুণীজন সম্মাননা ও রবীন্দ্রপদক প্রদান করবেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষ। এবারে রাজশাহীর প্রবীন উচ্চাঙ্গসঙ্গীত শিল্পী মঞ্জুশ্রী রায় ও রংপুরের লোকসঙ্গীত শিল্পী উপেন্দ্র নাথ রায়কে দেয়া হবে রবীন্দ্র পদক।
জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মেলন নতুন প্রজন্মকে রবীন্দ্র নাথের চেতনা ধারন করবে। স্থানীয় ভাবে রবীন্দ্র নাথের জন্ম ও মৃত্যু বার্ষিকী নিয়মিত পালনের দাবি দর্শকদের।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, রবীন্দ্র নাথ আমাদের বাতিঘর। সর্বদা আমাদের মাঝে আলো ছড়ান। আমাদের জীবনের গভীরে, চিন্তার গভীরে, তিনি আমাদের ভালোবাসার জন্ম দেন। তিনি আমাদের মাঝে অসাম্প্রদায়িকতার জন্ম দেন। আমরা জীবন রবীন্দ্র নাথকে হৃদয়ে ধারন করেছি, তেমনি আমাদের জাতির পিতা আমাদের সামনে উজ্বলতম নক্ষত্র হয়ে জ্বলছেন। যে জাতির রবীন্দ্রনাথ আছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর আছে- সে জাতি কখনও ভয় নেই, পরাজিত হওয়ার সুযোগ নেই।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন:

Print Friendly, PDF & Email