CC News

রাজশাহীতে ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির অভিযোগে আটক ৬

 
 

রাজশাহী: রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে ঈদের ফিরতি ট্রেনের টিকিট বিক্রির প্রথম দিনেই (শনিবার) শুরুর ২০ মিনিটের মাথায় শেষ হয়ে যায়। পরে কালোবাজারির অভিযোগে দুই নারীসহ ছয়জনকে আটক করা হয়।  আটকরা হলো- দুলাল হোসেন, সানোয়ার হোসেন, বাপ্পি, দুলাল শেখ, মাহাবুবা খাতুন ও রেখা খাকুন। এদের মধ্যে সানোয়ার ও দুলালকে মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। বাকি চারজনের প্রত্যেককে ৫০০ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

রাজশাহী জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান জানান, কালোবাজারি ঠেকাতে ফিরতি টিকিট বিক্রির শেষ দিন পর্যন্ত জনস্বার্থে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযান চলবে। এজন্য পুলিশ ও র‌্যাব জেলা প্রশাসনকে সহযোগিতা করছে।  ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শেষে সকাল সাড়ে ১১টার পর থেকে আবারও টিকিট কাউন্টারগুলো খুলে দেওয়া হয়। তখন টিকিট কালোবাজারিদের ঠেকাতে রেলওয়ে পুলিশ, বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ও র‌্যাব-৫ এর সদস্যরা স্টেশনে অবস্থান নেন। এর আগে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে প্রায় তিন ঘণ্টা টিকিট বিক্রি বন্ধ থাকে। এ সময় টিকিট না পেয়ে অনেকে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে যান।

তবে এসব বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের সুপারিন্টেনডেন্ট গোলাম মোস্তফা জানান, ফিরতি টিকিট বিক্রির প্রথম দিন শনিবার আগামী ১৮ জুনের ফিরতি টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। এছাড়া রবিবার ১৯ জুনের, সোমবার ২০ জুনের, মঙ্গলবার ২১ জুনের, বুধবার ২২ জুনের, বৃহস্পতিবার ২৩ জুনের এবং আগামী শুক্রবার ২৪ জুনের ফিরতি টিকিট বিক্রি করা হবে।

জানা গেছে, রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে শনিবার সকাল ৮টায় টিকিট বিক্রি শুরুর মাত্র ২০ মিনিটের মাথায় কাউন্টার থেকে জানানো হয়, টিকিট শেষ। সঙ্গে সঙ্গে বিক্ষোভ শুরু করে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা টিকিট প্রত্যাশীরা। পরে রেলওয়ে পুলিশ ও র‌্যাব গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। খবর পেয়ে টিকিট কালোবাজারিদের ধরতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রাজশাহী নগরীর উপশহর এলাকার টিকিট কাটতে আসা শামীম ও সুলতান ববি বলেন, ‘আমরা রাত থেকে দাঁড়িয়ে আছি। ১২-১৪ জনকে টিকিট দেওয়ার পর আর দিচ্ছে না। বাকি টিকিটগুলা গেল কোথায়? উপশহর এলাকার রাজিয়া আক্তার বলেন, ‘রাত ৪টা থেকে দাঁড়িয়ে আছি টিকিট পাইনি।’

Print Friendly, PDF & Email