CC News

জাহাঙ্গীর আলমের জয়: ন্যায় ও সত্যের বিজয়

 
 

সিসি ডেস্ক, ২৮ জুন: গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে রায় দিয়েছে গাজীপুরবাসী। সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে উপযুক্ত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছেন গাজীপুরবাসী। জাহাঙ্গীর আলমের জয়কে অন্যায় ও মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে বড় জয় হিসেবে দেখছেন সাধারণ মানুষ।

তাদের মতে, এই জয়সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের জয়। এই জয় অবহেলিত মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জয়। একবুক আশা ও ভালবাসা নিয়ে সাধারণ মানুষ দল-মত নির্বিশেষে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমকে জয়ী করে জনগণের সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। সাবেক মেয়র মান্নানের অপশাসন ও বঞ্চনা থেকে মুক্তি পেতেই মানুষ তরুণ ও জনপ্রিয় রাজনীতিক জাহাঙ্গীর আলমকে বেছে নিয়েছেন। সত্য ও ন্যায়ের প্রতীক হিসেবে সিটি করপোরেশনের দায়িত্ব নিবেন জাহাঙ্গীর আলম, এটিই সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা।

নির্বাচনে একাধিক ভোটকেন্দ্র সরেজমিনে পরিদর্শন করে সাধারণ মানুষের এই ভাবনাগুলো জানা গেছে। নাউজোর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দিতে এসে এক নারী ভোটার বলেন, জাহাঙ্গীর আলম এক জন যোগ্য নেতা। তাকে ভোট দিলে আমাদের ভাগ্য পরিবর্তন হবে। আগের বিএনপি মেয়র আমাদের এলাকায় কোন কাজ করেননি। তার কার্যালয়ে গেলে হয়রানির শিকার হতে হয়। তিনি বদমেজাজী ছিলেন। সেই হিসেবে জাহাঙ্গীর আলম মাটির মানুষ। তার কাছ থেকে কেউ খালি হাতে ফিরে আসে না। তিনি গরীবের দু:খ বোঝেন। আমার পুরো পরিবার তাকে ভোট দিয়েছে। জাহাঙ্গীর আলম জয়ী হবেন ইনশাঅাল্লাহ। জাহাঙ্গীর আলম এলাকার মানুষ। এলাকার প্রতি তার টান আলাদা। হাসান উদ্দিন সরকার তো ভাড়াটিয়া প্রার্থী।

জাহাঙ্গীর আলমের বিজয়কে গণতন্ত্রের বিজয় হিসেবে দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, জাহাঙ্গীর আলমের বিজয়ের মাধ্যমে গাজীপুরে সুস্থ্য রাজনীতির পথচলা নতুন করে শুরু হবে। জাহাঙ্গীর আলমের মাধ্যমে অত্র এলাকার রাজনীতির সুদিন শুরু ‌ফিরে আসবে। রাজনীতিতে পরিচ্ছন্ন ইমেজ কতটা জরুরি সেটি প্রমাণ করেছেন জাহাঙ্গীর আলম। জাহাঙ্গীর আলমের বিজয়ে সামগ্রিকভাবে সুস্থ্য রাজনীতির বিজয় হয়েছে। এটিকে দেশ, রাজনীতি ও গণতন্ত্রের জন্য সুখবর হিসেবে বলা যেতে পারে। জনগণের ভালবাসা যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটি আবারো প্রমাণিত হল জাহাঙ্গীর আলমের বিজয়ের মাধ্যমে।

Print Friendly, PDF & Email