CC News

সৈয়দপুরের বাদাম বিক্রেতা বেলাল এখন স্কুলে যায়..

 
 

বিশেষ প্রতিনিধি: ইচ্ছে ছিলো পড়াশোনা করার। বন্ধুদের সাথে স্কুল যাওয়ার। নিজেকে একজন মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলার। তবে সে ইচ্ছে গুলো মলিন হতে ধরেছিলো। স্বপ্ন গুলো অচিরেই ভাঙ্গতে শুরু করেছিলো।
অভাবের সংসার। রুটি রোজগার কম। টানাপোড়নে চলে দিন। একবেলা খেয়ে তো আরেকবেলা না খেয়ে। এমন দুরূহ পরিস্থিতিতে সন্তান হিসেবে বসে ছিলোনা। কাধে তুলে নিয়েছিলো অনেক বড় দায়িত্ব। রাস্তায় রাস্তায় ঘুরেফিরে বাদামবিক্রি শুরু করেছিলো।
বলছি নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের বাশিন্দা জবর আলীর সন্তান বেলাল হোসেনের কথা। বয়স ১০ কি ১১ হবে। এই বয়সী শিশুরা যখন খেলাধুলায় ব্যস্ত, স্কুলে স্কুলে পড়াশোনায় মগ্ন। তখন বেলালকে দেখা যেতো রাস্তাঘাটে। পথিমধ্যে বাদাম বিক্রি করতে।
সম্প্রতি সার্চ টিমের এক অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে বাদামবিক্রেতা বেলাল। তার সাথে কথা হলে সে জানায়, ‘স্কুলে যেতে চাই। পড়াশোনা করে মানুষের মতো মানুষ হতে চাই।’ পরে শিশু বেলালের এই আকাঙ্ক্ষার কথা ছড়িয়ে পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। একাধিক খবর প্রকাশিত হয় স্থানীয়, জাতীয় ও অনলাইন পত্রিকাতে।
এরই ফলশ্রুতিতে ‘সার্চ টিম সৈয়দপুর’ এগিয়ে আসে। শিশু বেলালের পাশে দাঁড়ায়। দফায় দফায় কয়েকবার সদস্যরা বেলালের বাড়িতে যায়। তার বাবা-মার সাথে কথা বলে।  পরব্রতিতে সার্চ টিমের সদস্যরা বেলালকে সাথে নিয়ে বোতলাগারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যায়। সেখানে তাকে প্রথম শ্রেনীতে ভর্তি করানো হয়।
এরই ধারাবাহিকতায় ২৯ জুন শুক্রবার সার্চ টিমের উদ্দ্যোগে বেলালকে তুলে দেওয়া হয় স্কুলের শার্ট, প্যান্ট, জুতা, ব্যাগ সহ যাবতীয় শিক্ষা উপকরণ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সার্চ টিমের সদস্য মোকাররম হোসেন, সোহেল রানা, মামুন ইসলাম, নওশাদ আনসারি, জাকির জুয়েল, মোন্তাকিম ইসলাম প্রমুখ।
সার্চ টিমের সদস্য মাহাবুল জানায়, ‘সার্চ টিম পরিবার সবসময় বেলালের পাশে থাকবে। বেলালের শিক্ষাক্ষেত্রে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিবে। সেইসাথে বেলালের মতো শিশুরা যেনো অচিরেই ঝরে না পড়ে এ লক্ষে কাজ করে যাবে সার্চ টিম সৈয়দপুর।’
শিশু বেলাল হোসেন জানায়, ‘এখন আর বাদাম বিক্রি করতে হয়না। পথে পথে ঘুরতে হয়না। আমি এখন স্কুলে যাই। নিয়মিত পড়াশোনা করি। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।’
বেলাল নাহয় সার্চ টিমের কল্যানে স্কুলে যেতে ধরেছে। আবারো পড়াশোনায় ফিরতে পেরেছে। কিন্তু বেলালের মতো আরো হাজারো সুবিধাবঞ্চিত শিশু রয়েছে। যারা স্কুলে যেতে চায়। পড়াশোনা করতে চায়। তাদের পাশে কি আমরা দাঁড়াতে পারিনা??

Print Friendly, PDF & Email