CC News

বেরোবির প্রশাসন ভবনে ছাত্রলীগের তালা

 
 
সিসি ডেস্ক: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর নামের বানান বিকৃতকারী কর্মকর্তার অব্যাহতি ও শাস্তির দাবিতে প্রশাসন ভবনে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার বেলা ১১টা থেকে প্রশাসন ভবনে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান নেয় তারা।
এ ঘটনায় প্রশাসন ভবনের সব কার্যক্রম বন্ধ হয়ে পড়ে। ভোগান্তিতে পড়ে ভর্তি ও ফর্ম পূরণ করতে আসা বিভিন্ন বিভাগের প্রায় চার শতাধিক শিক্ষার্থী। এদের অনেকেরই ভর্তি ও ফর্ম পূরণের শেষ দিন আজ।
ক্যাম্পাস সূত্রে জানা গেছে, ৪ জুলাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, শহীদ মুখতার ইলাহী হল এবং কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির বৈদ্যুতিক মেইনটেনেন্স কাজের জন্য প্রকৌশল দফতর থেকে দুজন ইলেকট্রিশিয়ানকে দায়িত্ব প্রদানের একটি চিঠি ইস্যু করা হয়। সেই চিঠিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম ভুল বানানে লেখা হয় ‘বঙ্গবন্দু শেখে’। এছাড়া শহীদ মুখতার ইলাহীর নামের বানান বিকৃত করে লেখা হয় ‘মোখতার’ ইলাহী।
ওই চিঠিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-প্রকৌশলী মোঃ শরীফ হোসাইন পাটোয়ারীর স্বাক্ষর ছিল। চিঠিটি ছাত্রলীগ নেতারা প্রকৌশল দফতরে সংশোধনীর জন্য পাঠালে কোনো সংশোধনী ছাড়াই আবারও ইস্যু করা হয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে গত রবিবার সকালে প্রকৌশল দফতরের উপ-প্রকৌশলীর অফিস কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয় ছাত্রলীগ।
এরপর প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় সোমবার বেলা ১১টা থেকে প্রশাসন ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নোবেল শেখ বলেন, তদন্তের মাধ্যমে অভিযুক্ত কর্মকর্তাকে অব্যাহতি ও বিষয়টি খতিয়ে দেখে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত ছাত্রলীগের কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে। প্রয়োজনে আরো কঠোর হবে ছাত্রলীগ।
এদিকে প্রশাসন সূত্র জানায়, নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী ও কম্পিউটার অপারেটর রাকিবুল ইসলাম শ্যামলকে সোমবার বেলা ১২টার মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
এ ব্যাপারে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইব্রাহীম কবীরের মুঠোফোনে একাধিকার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।
এদিকে রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল দপ্তর থেকে ইস্যু করা এক অফিস আদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল এবং শহীদ মুখতার ইলাহী হলের নাম লিখতে গিয়ে বানান ভুল করায় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা নির্বাহী প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী ও প্রকৌশল দপ্তরের কম্পিউটার অপারেটর মোঃ রাকিবুল ইসলাম শ্যামলকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে নোটিশের জবাব দেওয়ার সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। এ সময়ের মধ্যে দায় স্বীকার করে নিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। তবে কম্পিউটার অপারেটর মোঃ রাকিবুল ইসলাম শ্যামল এখনো নোটিশের জবাব দেননি।
রবিবার সকালে বানান ভুলের বিষয়টি প্রশাসনের নজরে এলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এই কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন। বেঁধে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে যথাযথ জবাব দিতে ব্যর্থ হলে দায়ী কর্মকর্তা/কর্মচারীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানানো হয়েছে। বেরোবির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা বিভাগের সেকশন অফিসার মোঃ আরিফুল ইসলাম জানান, কারণ দর্শানোর নোটিশ পাওয়ার মাত্র তিন ঘণ্টার মধ্যে নির্বাহী প্রকৌশলী শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে কম্পিউটার টাইপের সময় ‘অনিচ্ছাকৃত ভুল’ হয়েছে উল্লেখ করে প্রশাসনকে জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি স্পর্শকাতর এই নামগুলোর বানান ভুলের কারণে অনুতপ্ত বলে জানিয়েছেন।
Print Friendly, PDF & Email