CC News

সৈয়দপুর ভূমি অফিসের চেইনম্যানের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগ

 
 

সিসি নিউজ, ২৩ জুলাই: নীলফামারীর সৈয়দপুর ভূমি অফিসের চেইনম্যান নূরে আলম সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে সরকারী সম্পত্তি দখলের অভিযোগ উঠেছে। অপরদিকে উপজেলা প্রশাসন ভূল বোঝাবুঝির কারনে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে। আজ সোমবার (২৩ জুলাই) ভোর রাতে সরকারী সম্পত্তি দখলের অভিযোগের ঘটনাটি ঘটেছে শহরের নয়াটোলা এলাকায়।
এলাকাবাসী জানায়, প্রায় ৩০ বছর সৈয়দপুর ভূমি অফিসে কর্মরর্ত ছিলেন হাশেম আলী। কর্মরত থাকা অবস্থায় তিনি শহরের নয়াটোলা এলাকায় একটি সরকারী সম্পত্তি জেলা প্রশাসক মারফত বরাদ্দ নিয়ে বসবাস করতে থাকেন। ভোর রাতে স্থানীয় লোকজন দেখতে পান সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তার ব্যবহৃত গাড়ী দাঁড় করিয়ে চেইনম্যান (ড্রাইভার হিসেবে দায়িত্বরত) নুরে আলম সিদ্দিকী, তার ভাই ময়নুল ইসলামসহ কয়েকজন বরাদ্দকৃত সেই জমিতে অবৈধভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে টিনের ঘর বাড়ী নির্মাণ করছেন।
এ সময় স্থানীয়রা ঘর নির্মানের কারণ জানতে চাইলে নূরে আলম ও ময়নুল ইসলাম বলেন, উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই ঘরবাড়ী নির্মাণ করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে প্রতিবেশী সৈয়দপুর পৌর জাতীয় পার্টির সভাপতি কাজী ময়নুল ইসলাম বলেন, সরকারী জমি বরাদ্দ দেওয়ার মালিক হল জেলা প্রশাসক। অথচ জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে কোন প্রকার বরাদ্দ বা নির্দেশনা না নিয়ে গায়ের জোরে ওই সম্পত্তিটি অন্যায়ভাবে দখল নেওয়ার চেষ্টা চালানো হয়েছে। সহকারী ভূমি কর্মকর্তার গাড়ী দাঁড় করিয়ে ভোর রাত থেকে জমিটি দখলে নেওয়ার চেষ্টা হল ক্ষমতার অপব্যবহার।
দখলকৃত জমিতে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে কথা বলতে গেলে সৈয়দপুর বিদ্যুৎ বিতরণ ও বিক্রয় কেন্দ্রের প্রকৌশলী মাহফুজ আলম জানান, বিষয়টি তার জানা নেই এবং অভিযোগ পেলে দোষী ব্যাক্তির বিরদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বজলুর রশীদ বলেন, ওই স্থানে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সদর সার্কেল অফিস নির্মাণের একটি প্রক্রিয়া চলছে। তিনি বলেন, একটি মহল ১২৮ নং পরিত্যক্ত বাড়িটির পাশের খোলা জায়গাটি দখল করার অপচেষ্টা করছে মর্মে মৌখিক অভিযোগ পাই। এর প্রেক্ষিতে জায়গাটি সংরক্ষনের জন্য সহকারী কমিশনারকে নির্দেশ প্রদান করলে তিনি অফিসের লোকজন দিয়ে একটি চালাঘর নির্মান করে।

Print Friendly, PDF & Email