CC News

ধৈর্যের সীমালঙ্ঘন করলে ব্যবস্থা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 
 

ঢাকা, ০৫ আগষ্ট: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে ট্রাফিক সপ্তাহ শুরু হয়েছে। এ ট্রাফিক সপ্তাহের মাধ্যমে আমি সবাইকে রাস্তায় চলাচলে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। চালক, যাত্রী, পথচারী সবাইকেই ট্রাফিক আইন মেনে না চলতে  হবে। এ আইন না মানলে কোনোভাবেই সড়ক দুর্ঘটনা কমানো যাবে না। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি। শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনকে অন্যদিকে নেওয়ার প্রচেষ্টা হচ্ছে। আপনারা দেখেছেন হাজার হাজার আইডি কার্ড গলায় ঝুলানো হয়েছে। একটাও স্কুলের ছাত্র নয়, সব প্রাপ্তবয়ষ্ক।’তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই অপপ্রচার করছে। একজন অভিনেত্রী তার অভিনয় দেখিয়ে পুরো আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করেছে। যেটা সে করতে পারে না।বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর ভাইরাল ফোন রেকর্ড সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, একজন দায়িত্বশীল নেতা, ঢাকায় মানুষ নামতে বলে। তার উদ্দেশ্য যে ভালো ছিল না, আমরা বুঝতে পেরেছি।তিনি আরও বলেন, ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ্য মাধ্যমে আন্দোলনের যে ছবি দেয়া হয়েছে তার অনেকগুলোই পাকিস্তানের ছবি। এর মধ্যে ২০১২-১৩ সালের ছবিও আছে।শিক্ষার্থীদের ঘরে ফিরে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তাদের কোনো দাবি অপূর্ণ নেই। যে দুটি আছে তার একটি নিরাপদ সড়কের দাবিতে আইন, যেটি সোমবার মন্ত্রিসভায় উঠবে। অপরটি হলো আন্ডারপাস ও ওভারব্রিজ তৈরি। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দিয়েছেন।অনুষ্ঠানে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, মূলত চালকদের ট্রাফিক সংক্রান্ত জ্ঞানের অভাব, আইন প্রয়োগের যথাযথ পরিবেশ না থাকা, ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও এনফোর্সমেন্টের অভাবের কারণে সড়কে যানজট ও ট্রাফিক অব্যবস্থাপনা দেখা যায়। ট্রাফিক সপ্তাহের মাধ্যমে আমরা এই বিষয়গুলোর দিকে নজর দিয়ে যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনা করব। এর আগে শনিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ৫ থেকে ১১ আগস্ট ট্রাফিক সপ্তাহের ঘোষণা করেন। আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছিলেন, ‘শিক্ষার্থীরা আমাদের একটি নৈতিক ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। সড়কে পরিবহন ব্যবস্থাপনার যে ইতিবাচক দিকটি তারা তুলে ধরেছে সেটিকে বিবেচনায় নিয়ে রবিবার থেকে ট্রাফিক সপ্তাহ পালন করা হবে। অবৈধ গাড়ি ও চালকদের বিরুদ্ধে আমরা অভিযান শুরু করব।সারা দেশে আজ থেকে আগামী ১১ আগস্ট পর্যন্ত এই ট্রাফিক সপ্তাহ চলবে। সপ্তাহজুড়ে সড়কে চলাচলরত বিভিন্ন যানবাহনের ফিটনেস পরীক্ষার পাশাপাশি লাইসেন্স পরীক্ষা, ট্রাফিক আইনভঙ্গ রোধ এবং ট্রাফিক আইন মেনে চলতে সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করবে পুলিশ।

Print Friendly, PDF & Email