CC News

ভেনেজুয়েলায় প্রেসিডেন্টের ওপর ড্রোন হামলা

 
 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভেনেজুয়েলায় অল্পের জন্য ড্রোন হামলা থেকে প্রাণে বাঁচলেন প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরো। সরকারী বিবৃতিতে জানানো হয়, শনিবার রাজধানী কারাকাসে সামরিক বাহিনীর এক অনুষ্ঠানে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত হামলার দায় স্বীকার করেনি কেউ।
সাধারণ নির্বাচনের আগে থেকেই মাদুরোর বিরুদ্ধে সরব ছিলেন কলোম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জ্যঁ ম্যানুয়েল সান্তোস। এমনকি নির্বাচনে জয়লাভের পর শুভেচ্ছার পরিবর্তে উল্টো মাদুরোর পতনের আশা জানান তিনি। তাই ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্টের ওপর চালানো হামলায় ডানপন্থীদের সাথে কলোম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জড়িত বলেই সন্দেহ মাদুরোর।
ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরো বলেন, তদন্ত শুরু হয়েছে। পরিস্থিতিও এখন আমাদের নিয়ন্ত্রণে। আমি নিশ্চিত, আমাকে হত্যা করতেই এ হামলা চালানো হয়েছে। নিঃসন্দেহে বলতে পারি, হামলায় ডানপন্থীরা জড়িত। সবকিছু দেখে মনে হচ্ছে এতে কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জ্যঁ ম্যানুয়েল সান্তোসেরও হাত আছে।
শনিবার বিকেলে সেনাবাহিনীর ৮১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ভাষণ দিচ্ছিলেন মাদুরো। ভাষণ চলার সময়ই হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যায় মাইকের আওয়াজ। উপস্থিত সবার ওপর দিয়ে অনুষ্ঠানস্থলের পেছনে গিয়ে আঘাত হানে দুটি বিস্ফোরকবাহী ড্রোন। এসময় সেনা সদস্যরা দ্রুত প্যারেড গ্রাউন্ড থেকে সরে যায়। আহত হয় ৭ নিরাপত্তারক্ষী।
হামলার পর যোগাযোগ মন্ত্রী জর্জ রড্রিগেজ জানান, প্রেসিডেন্টকে হত্যাই এই হামলার উদ্দেশ্যে ছিল। এদিকে হামলায় জড়িত সন্দেহে কয়েকজন কর্মকর্তাকে আটকের নির্দেশও দিয়েছেন মাদুরো। তবে সমালোচকদের দাবি, বিরোধীদের দমনে হামলার বিচারের অযুহাতকে কাজে লাগাতে পারেন মাদুরো।
এখন পর্যন্ত হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো পক্ষ। দেশের আইনব্যবস্থা নিয়ে অনেক প্রশ্ন থাকলেও দ্রুতই হামলাকারীকে চিহ্নিত করতে চায় মাদুরো সরকার।

Print Friendly, PDF & Email