CC News

‘কোমলমতি শিক্ষার্থীরা আমাদের বিবেককে নাড়া দিয়েছে’

 
 

ঢাকা, ১১ আগস্ট: ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ‘নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করে কোমলমতি শিশু-কিশোররা আমাদের বিবেককে নাড়া দিয়েছে। তাদের দাবি যৌক্তিক, ন্যায্য। আমরা তাদের চেতনাকে অন্তরে ধারণ করি। আমরা ট্রাফিক সপ্তাহে সবাইকে এই বার্তা দিতে পেরেছি যে, ট্রাফিক আইন অমান্য করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’
ট্রাফিক সপ্তাহ-২০১৮ উপলক্ষে আজ শেষ দিন শনিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর পুলিশের প্রধান এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সড়কে নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা আরও বেগবান করার জন্য ট্রাফিক সপ্তাহের সময়সীমা  বাড়ানো হয়েছে। ট্রাফিক সপ্তাহ শেষ হয়ে গেলেও পুলিশ এই কার্যক্রম সারা বছরই দেখভাল করবে। চলমান এই ট্রাফিক সপ্তাহে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ট্রাফিক আইনে কঠোরভাবে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ভিআইপি থেকে সাধারণ জনতা কেউ আইনের আওতার বাইরে নয়।’
আসাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘এই সময়ে ট্রাফিক আইন অমান্য করায়, মোট ৫২ হাজার মামলা হয়েছে। লাইসেন্স না থাকায় মোট ১১ হাজার ৪০২ জন চালকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ফিটনেস না থাকায় ডাম্পিং করা হয়েছে পাঁচ হাজার ৫৭২টি গাড়ি আর এই সময়ে জরিমানা আদায় করা হয়েছে তিন কোটি টাকার বেশি।’
ডিএমপি কমিশনার বলেন, চলতি ট্রাফিক সপ্তাহের কর্মসূচি আরও তিনদিন বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে নিজেদের ব্যর্থতার কথা স্বীকার করে আইনের কঠোর প্রয়োগের মাধ্যমে সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় গত রোববার থেকে সারাদেশে ট্রাফিক সপ্তাহ পালনের ঘোষণা দিয়েছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

চলমান ট্রাফিক সপ্তাহের ষষ্ঠ দিন শেষে সারাদেশে মোট ১ লাখ ৩৪ হাজার ২৩টি যানবাহনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে তিন কোটি ৭৭ লাখ ৫৯ হাজার ২২৩ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়াও সারাদেশে ৪০ হাজার ৬৩০ চালকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ।

Print Friendly, PDF & Email