CC News

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ

 
 

অনিরুদ্ধ রেজা, কুড়িগ্রাম: চাঁদাবাজি, জমি দখল, পুকুর দখল, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও ইফটিজিংসহ বিভিন্ন অভিযোগে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সালমান ফারসী তুষারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা করেছে উপজেলা ছাত্রলীগ।
মঙ্গলবার বিকালে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা চত্বরে আয়োজিত প্রতিবাদ সভার চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী এই ছাত্রলীগ নেতাকে অবিলম্বে বহিষ্কারের দাবী জানানো হয়।
সভায় ছাত্রলীগ সভাপতি সোহেল রানা সোহেলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাবেক এমপি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাকির হোসেন, সহ-সভাপতি এম এ মোমেন, এন আর জাহাঙ্গীর আলম রবু, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিনু, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবিদ শাহনেওয়াজ তুহিন, সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি রাজু আহম্মেদ খোকা, উপজেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ সহ উপজেলা আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
সভায় বক্তারা বলেন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সালমান ফারসি তুষার ৩ বছর আগে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে কিছু দুষ্কৃতিদের নিয়ে তুষার বাহিনী বানিয়ে এলাকায় চাঁদাবাজি, ইফটিজিং, জমি দখলের কন্ট্রাক, পুকুর দখলের কন্টাক, মাদক ব্যবসা ও মাদকসেবনসহ বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে। যা দলের ভাবমূর্তি চরম ভাবে ক্ষুন্ন করছে। তাই তাকে অবিলম্বে দল থেকে বহিস্কার করার দাবী জানান রক্তারা।
রৌমারী সদর ইউনিয়নের সভাপতি রাজু আহম্মেদ খোকা তার বক্তবে বলেন, সোমবার ভোর ৫টার দিকে উপজেলার নটানপাড় এলাকায় পাখিউড়া গ্রামের অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য রোকনের শ্বশুড় বাড়িতে গিয়ে তুষারসহ তার বাহিনী রোকনের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। না দিলে তার বাড়ির কাজ বন্ধ করাসহ প্রান নাশের হুমকি দেয়। রোকন কোন উপায় না পেয়ে তার শ্যালক সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন বিপ্লব টাকা দিবে বলে তাকে বিদায় করেন। পরে তারা ওই দিন সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে বিপ্লবকে পথরোধ করে চাঁদার টাকা দাবী করলে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। বিপ্লব বিষয়টি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে আবগত করেন।
রৌমারী উপজেলা ছাত্রলীগ অফিস সুত্রে জানা যায়, ঘটনার পর অভিযোগের বিষয়টি জানার জন্য তুষারকে একাধিকবার পার্টি অফিসে ডেকে পাঠানো হয়। কিন্তু সে কর্ণপাত না করে তার সাঙ্গপাঙ্গসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বিপ্লবকে আক্রমন করার জন্য খুঁজে বেড়ায়। এসময় আওয়ামীলীগ সভাপতি জাকির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিনু, রাজু আহম্মেদ খোকাসহ কয়েকজনকে সাথে নিয়ে বিষয়টি নিরসনের জন্য এগিয়ে গেলে তুষার বাহিনী রামদা দিয়ে সভাপতিসহ অনেকের উপর আক্রমন করে। এসময় ছাত্রলীগ সদস্য মন্ডল মিয়া (২৪) সভাপতিকে রক্ষা করতে গেলে তার গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রের্ফাড করেন।
ছাত্রলীগ নেতারা অভিযোগ করেন, গত তিন মাসে তুষার বাহিনী কন্ট্রাকে উপজেলার ইছাকুড়িগ্রামে হামলা চালিয়ে বাড়ি দখল করে। শৌলমারী গ্রামে বাড়িতে আগুন লাগিয়ে জমি দখল করে। বাইটকামারী গ্রামে পুকুর দখল করে। মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে ২লাখ টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়। সবুজপাড়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা সন্তান স্কুল শিক্ষক সুমনকে জিম্মি করে ২০ হাজার টাকা নেয়। ইফটিজিংসহ অসংখ্য অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় রাজু আহম্মেদ খোকা নিজে বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। তার এহেন কার্যকলাপের জন্য তাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিস্কারের জোরালো দাবী জানান ছাত্রলীগ নেতাসহ উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিনু বলেন, তুষারের অপকর্মের হিসাব দেওয়া মুসকিল। তাকে এখনেই বহিস্কার না করলে আগামী নির্বাচনে এর প্রভাব পরবে। আওয়ামীলীগে কোন চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীর স্থান নেই।
রৌমারী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক এমপি জাকির হোসেন জানান, সে আমাকেই আক্রমন করার সাহস দেখায় তাহলে সাধারণ মানুষের কি অবস্থা। আমি ছাত্রলীগের সভাপতিকে বলছি তুমি ঈদের পরে মিটিং করে তুষারকে বহিস্কারে সিদ্ধান্ত নিয়ে রেজুলেশন কর। আমি সুপারিশ দিয়ে জেলায় পাঠাব। বর্তমান সরকারের আমলে এরকম সন্ত্রাসীর স্থান আওয়ামীলীগে নেই।

Print Friendly, PDF & Email