CC News

সিলেটের বিশ্বাসঘাতকরা রেহাই পাবেন না: ওবায়দুল কাদের

 
 

সিলেট, ৩১ আগষ্ট: সিলেটে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানের পরাজয় দলের ভেতরের বিশ্বাসঘাতকতায় হয়েছে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। ভোটের এক মাস পর দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলর মহানগরটিতে গিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, যারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, তাদের কেউ রেহাই পাবে না।

বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেট মহানগরীরর রেজিস্ট্রি মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অনেক হয়েছে, কারা কী করেছেন, দলের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা বিশ্বাসঘাতকরাই সিদ্ধান্ত নিয়ে নৌকাকে পরাজিত করেছেন। নৌকা ঠেকানোর নেতৃত্ব কে দিয়েছেন? এসব আত্মবিনাশী প্রতিযোগীতাকারীরা রেহাই পাবেন না। অনেক অভিযোগ জমা পড়েছে।  সব খতিয়ে দেখছি, দোষ প্রমাণ হলে রেহাই নাই। নৌকার বিরোধীতাকারী যত বড় প্রভাবশালীই হোন না কেন, রক্ষা পাবেন না।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপি উদ্দেশ্যে বলেন, মনে রাখবেন যতই ষড়যন্ত্র করুন না কেন, বাংলাদেশে আর ২০০১ সালের পুনরাবৃত্তি হবে না। সকাল ১০টায় ভোট শেষ, সেই নির্বাচন বাংলাদেশে আর হবে না।

দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র হচ্ছে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র হচ্ছে, সব খবর আমরা রাখি। কানাডায় বসে, মধ্যপ্রাচ্যে বসে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। কারা কোন দেশে কখন কি উদ্দেশ্যে, কি ষড়যন্ত্র করে সেই খবর আমরা রাখি, আমাদের কাছে সেই খবর আছে। ষড়যন্ত্র, চক্রান্তের চোরাবালি দিয়ে ক্ষমতা দখলের চক্রান্ত বাংলাদেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করবো।

সভাপতির ভাষণে অশ্রুসিক্ত সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, আজকে এখানে নির্বাচিত মেয়র হিসেবে ভাষণ দেয়ার কথা ছিল। দলও আমাকে মনোনয়ন দিয়েছিল। কিন্তু পারিনি। আর মনোনয়ন চাই না। আমি একজন আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে চাই। এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন কামরান।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সভাপতিত্ব ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, এনামুল হক শামিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও সদস্য রফিকুর রহমান।

সিলেট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইমরান আহমদ, সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লুৎফুর রহমান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email