CC News

”হাইটেক পার্কের মাধ্যমে জীবিকার ধারা বদলাবে”

 
 

নাটোর: নাটোরে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারে নতুন ভবনের উদ্বোধন করেছেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। প্রযুক্তিনির্ভর কর্মসংস্থান নিশ্চিতে দেশের প্রথম এই সেন্টার নাটোরে স্থাপিত হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “আইসিটি-ক্ষেত্রে পেশাদার মানবসম্পদ তৈরির মাধ্যমে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বছরপ্রতি রপ্তানি আয় পাঁচ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। হাই-টেক পার্ক নির্মাণের মাধ্যমে সারা দেশের মানুষের দৈনন্দিন আইটিনির্ভর কাজকর্ম দ্রুততর সমাধান করা সম্ভব হবে। এতে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ও জীবিকার ধারা বদলাবে; যা অর্থনীতিতে সরাসরি ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।”

জুনাইদ আহমেদ পলক জানান, উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রশিক্ষণার্থীরা এখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে উপার্জন শুরু করেছে। ভবিষ্যতে নাটোর হবে প্রযুক্তির উত্তরাঞ্চলীয় হাব।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম এনডিসি বলেন, “এই কর্মসূচির আওতায় ইতোমধ্যে ২১টি ব্যাচে মোট ৪৮০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে তারা বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সার তৈরির উদ্দেশ্যে আগ্রহী শিক্ষিত বেকার তরুণ-তরুণীদের দক্ষতা বৃদ্ধি এবং ফ্রিল্যান্সিং/আইটি পেশায় আগ্রহী উদ্যোক্তাদের জন্য ইনকিউবেশন ও প্রাতিষ্ঠানিক অবকাঠামোগত সুবিধা দেওয়াই আমাদের কর্মসুচির উদ্দেশ্য ছিল।

নাটোরের জেলা প্রশাসক বেগম শাহিনা খাতুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, হাই-টেক পার্কের পরিচালক (উপসচিব) ফাহমিদা আখতার, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাজেদুর রহমান খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরামুল হোসেন, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মর্তুজা আলী বাবলু, দফতর সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email