CC News

নোবেল পুরস্কারে যৌন কেলেঙ্কারির হোতার কারাদণ্ড

 
 

সিসি ডেস্ক : চলতি বছর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পিছিয়ে যাওয়ার মূল হোতা জ্যঁ-ক্লদ আর্নল্টকে ধর্ষণের দায়ে দুই বছরের সাজা দিয়েছেন সুইডেনের একটি আদালত। সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার প্রদানকারী সুইডিশ অ্যাকাডেমির এই ফটোগ্রাফারের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতন ও আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলা চলছে। খবর- দ্য গার্ডিয়ানের।

সোমবার (১ অক্টোবর) স্টকহোমের একটি জেলা কোর্ট আর্নল্টকে দুই বছরের এই সাজার রায় দেন। বিচারক গুডরুন আন্টেমার বলেন, সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি ও কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর বিবৃতির ভিত্তিতে মূলত, তার অপরাধের পর্যাপ্ত প্রমাণ রয়েছে। আর ওই সাক্ষ্য-প্রমাণই তাকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত করার জন্য যথেষ্ট।

সোমবার নোবেল পুরস্কার প্রদান সপ্তাহ শুরু হয়। এদিন চিকিৎসা শাস্ত্রে নোবেল পুরস্কার ঘোষণার কিছুক্ষণ আগে আর্নল্টকে এই সাজা দেয়া হয়।

আর্নল্টের আইনজীবী বোজোর্ন হার্টিগ আগেই জানিয়েছিলেন যে, তার মক্কেল দোষী সাব্যস্ত হলে তারা এর বিরুদ্ধে আপিল করবেন। তিনি বলেন, তার মক্কেল সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন ওই সাক্ষ্যপ্রমাণ মৌলিকভাবে ত্রুটিপূর্ণ।

রুদ্ধদ্বার এই বিচার প্রক্রিয়ায় আর্নল্ট তিন বছরের কারাদণ্ড দেয়ার আবেদন জানান রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি ক্রিস্টিনা ভইগ্ট। সুইডেনে ধর্ষণের সাজা সর্বোচ্চ ছয় বছর।

এদিকে ১৯৪৯ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার চালু হওয়ার পর এ বছরই প্রথম এই ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেয়া হচ্ছে না। সুইডিশ অ্যাকাডেমি জানিয়েছে, এর পরিবর্তে আগামী বছর ২০১৮ ও ২০১৯ সালের জন্য দুজন সাহিত্যে নোবেল জয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে।

উল্লেখ্য, সুইডিশ অ্যাকাডেমির সদস্য ও লেখিকা ক্যাটরিনা ফ্রসটেনসনের স্বামী আর্নল্টের বিরুদ্ধে অন্তত ১৮ জন নারী ধর্ষণ বা যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন। আর্নল্টের বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মসহ সাহিত্যে নোবেল জয়ীর নাম ফাঁস করে দেয়ারও অভিযোগ রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email