CC News

‘চলতি মাসেই কাজ শুরু করবে গুজব শনাক্তকরণ সেল’

 
 

সিসি ডেস্ক, ১০ অক্টোবর।। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব শনাক্ত এবং এ বিষয়ে জনগণকে সরকারের পক্ষ থেকে তথ্য দিতে গঠিত মনিটরিংসেল চলতি মাসেই কার্যক্রম শুরু করবে।

তথ্য অধিদফতরের উপ-প্রধান তথ্য অফিসার রিফাত জাফরীনকে প্রধান করে ৯ সদস্যের এই ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’ গঠন করা হয়েছে। তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন তথ্য অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে এ সেল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করবে।

সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে মঙ্গলবার আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, আমরা আশা করছি চলতি মাসেই তথ্য মন্ত্রণালয় এই সেলের কর্মকাণ্ড শুরু করবে। আমরা যদি মনে করি তথ্য অধিদফতরের এ সেলের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য আরো একটি কমিটি গঠন করা প্রয়োজন, তাহলে আরো একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হবে।

তিনি আরো বলেন, এ সেলের কাজ হচ্ছে কোনটি গুজব সেটা শনাক্ত করে মিডিয়াকে অভিহিত করা। এখানে আমাদের মূল চ্যালেঞ্জ হচ্ছে গুজব কোনটা, সেটা শনাক্ত করা। গুজব হচ্ছে, মিথ্যা বা অসত্য বানোয়াট তথ্য বা অতিরঞ্জন, যার কারণে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি ক্ষুন্ন হয়, রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বিঘ্নিত এবং রাষ্ট্র বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে যায়। যা যে কোনো অন্দোলনকে ভিন্ন পথে প্রবাহিত করতে পারে।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ সেলটিকে কার্যকর করার জন্য প্রথমে নির্ধারণ করা হবে এ মহূর্তে অনলাইনে কোন গুজবগুলো ঘুরে বেড়াচ্ছে সেটা নির্ধারণ করা। এগুলো আসলে গুজব কিনা সেটা নির্ধারণে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে গিয়ে নিশ্চিত হবে। গুজব না হলে সেখানে আমাদের কিছু করার থাকবে না। গুজব হলেই আমরা জানাব যে এটি গুজব।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে গুজবগুলোর তালিকা তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ফিল্টার করার জন্য বিটিআরসির কাছে পাঠিয়ে দেয়া হবে। গুরুত্ব বিবেচনায় আমরা এটি দৈনিক বা সাপ্তাহিকভাবে করতে পারি। এ জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়সহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার প্রতিনিধিদের এক সঙ্গে কাজ করতে হবে।

এ সময়ে তথ্য সচিব আব্দুল মালেক, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email