CC News

নীলফামারীতে ১১ জনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

 
 

নীলফামারী, ৯ ডিসেম্বর॥ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নীলফামারীর ৪টি আসন হতে ১১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছে। মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন আজ রবিবার(৯ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টা পর্যন্ত তারা জেলা রির্টানীং অফিসার কার্যালয়ে এসে তাদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে। এ ছাড়া ইসি হতে দলীয়ভাবে মনোনয়ন প্রত্যাহারের একটি তালিকাও আসে। 
জেলা রির্টানীং কর্মকর্তা জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
সুত্র মতে, নীলফামারী জেলার চারটি আসনে ৩০ জন প্রাথীর মধ্যে ১১ জন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে। ফলে প্রার্থী থাকলো ১৯ জন। আগামীকাল সোমবার(১০ ডিসেম্বর) প্রার্থীদের প্রতিক বরাদ্দে পরিস্কার হবে কে কোন দলের প্রার্থী।
নীলফামারী-১ (ডোমার ডিমলা) আসনে ১১ জন প্রার্থীর মধ্যে ৩ জন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। এরা হলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (আঃলীগ) হামিদা বানু শোভা, ২০ দলীয় জোটের ন্যাশনাল পিপুলস পার্টির ন্যান্সি রহমান কবীর ও যুবদলের ডোমার উপজেলার সাবেক সহ সভাপতি এ আহমেদ বাকের বিল্লাহ মুন। এখন এই আসনে ৮ জন প্রার্থী থাকলো।
নীলফামারী-২ (সদর) আসনে ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করেন ২ জন। এরা হলো জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সামছুজ্জামান জামান ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের আতাউর রহমান বাবু। এখন প্রার্থী থাকলো ৪ জন।
নীলফামারী-৩ (জলঢাকা) আসনে ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন তিন জন। এরা হলেন বর্তমান আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, জাতীয় পার্টির কাজী ফারুক কাদের এবং বিএনপির জলঢাকা পৌরসভার বর্তমান মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল কমেট।
নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরীগঞ্জ) আসনে ৬ প্রার্থীর মধ্যে দুইজন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছে। এরা হলো বিএনপির বেবী নাজনীন ও জাতীয় পার্টির বর্তমান সংসদ সদস্য শওকত চৌধুরী। এই আসনে বর্তমানে প্রার্থী থাকলো চারজন।

Print Friendly, PDF & Email