CC News

ফ্রাইলিংকে ধ্বসে গেল রংপুর

 
 

আমিরুল লতিফ, ঢাকা।। ফ্রাইলিংকের বিধ্বংসী বোলিংয়ে প্রথম ম্যাচেই বড় হার রংপুর রাইডার্সের। চট্টগ্রাম ভাইকিংসের কাছে হেরেছে ৩ উইকেটে। ৯৯ রানের টার্গেট ৫ বল আগে ছুয়ে ফেলে ভাইকিংস। ১৪ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা ফ্রাইলিংক।

টস জিতে রংপুরকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় চট্টগ্রাম। ইনিংসের ২য় ওভারে আসেন ফ্রাইলিংক। পরপর দুই বলে ফেরান অ্যালেক্স হেইলস ও মিঠুনকে। দুজনই করেন শূন্য রান। আবু জায়েদ রাহী ফেরান ৭ রান করা রাইলি রোসোকে। পরের ওভারে আবারো আঘাত হানেন ফ্রাইলিংক। মেহেদী মারুফ স্কয়ার লেগে ক্যাচ তুলে দেন সানজামুল ইসলামরে হাতে। হাওয়েল ৮, ফরহাদ রেজা ৩ এবং মাশরাফী ২ রান করে আউট  হলে ৩৫ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে তখন রীতিমত বিপর্যয়ে রংপুর। সোহাগ গাজীকে সাথে নিয়ে ৮ম উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়েন রাভি বোপারা। তাড়াহুড়া করতে থাকা সোহাগ গাজী ২১ রানে ফিরলে শেষ হয়ে যায় রংপুরের বড় সংগ্রহের সম্ভাবনা। সোহাগ গাজীকে ফিরিয়ে নিজের ৪র্থ উইকেট শিকার করেন ফ্রাইলিংক। এরপর বোপারাও টেকেননি বেশিক্ষণ। ৪৪ রান করে রাহীর বলে ক্যাচ দিয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের হাতে। নাজমুল ইসলাম অপু শেষ বলে রান আউট হলে ৯৮ রানে শেষ হয় রাইডার্সের ইনিংস।

জবাবে অবশ্য চট্টগ্রামের শুরুটা ভাল হয়নি। নিজের দ্বিতীয় ওভারে আঘাত হানেন মাশরাফী। ডেলপোর্টকে হেইলসের ক্যাচ বানান সংসদ সদস্য হওয়ার পর প্রথম খেলতে নামা মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। নিষেধাজ্ঞা কাটানোর পর প্রথম বিপিএলে সুযোগ ছিল মোহাম্মদ আশরাফুলের । কিন্তু অতি আক্রমণাত্বক মনোভাবই কাল হলো তার। মাত্র ৩ রানে ফিরলেন শফিউলের শিকার হয়ে। ৩য় উইকেটে ৩২ রান যোগ করে মোহাম্মদ শাহজাদ ও মুশফিকুর রহিম। হওয়েল ২৭ রানে মোহাম্মদ শাহজাদকে এলবিডব্লিউ করলে ভাঙে জুটি। এরপর দ্রুত আরো ২ উইকেট হারায় চট্টগ্রাম। সিকান্দার রাজা ৩, মোসাদ্দেক করেন ২ রান। ৬২ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর ম্যাচ থেকে কিছুটা বেরিয়ে যায় মুশফিকের দল। দলীয় ৭৭ রানে নাঈম হাসান এবং দলীয় ৮৫ রানে মুশফিকুর রহিম ফিরলেও খুব অসুবিধা হয়নি। ফ্রাইলিংক এবং সানজামুল ম্যাচ জিতিয়ে বের হন মাঠ থেকে।

Print Friendly, PDF & Email