CC News

রংপুরে আগুন পোহাতে গিয়ে দগ্ধ আরো ২ জনের মৃত্যু

 
 

সিসি ডেস্ক, ৭ জানুয়ারি ।। রংপুর অঞ্চলে শীতের কারণে আগুন পোহাতে গিয়ে দগ্ধের ঘটনায় আরো দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীর অবস্থায় রবিবার মারা যান তারা।

এ নিয়ে দগ্ধের ঘটনায় গত পাঁচদিনে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২০ জন।

মৃত দুইজন হলেন- লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার বড় কমলাবাড়ি গ্রামের শাহাজাহান আলীর স্ত্রী শহিনা বেগম (২৩) এবং নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার খড়িবাড়ি গ্রামের নয়া মিয়ার ছেলে সাইমুল (১৮)।

এর আগে যে দুজন মারা গেছেন তারা হলেন- লালমনিরহাট জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার রাজিয়া বেগম (২৭) এবং একই জেলার আদিতমারী উপজেলার মোমেনা বেগম (৩২)।

এদিকে রংপুর অঞ্চলে শৈত্য প্রবাহে তাপমাত্রা প্রতিদিনই কমছে। গত এক সপ্তাহ ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠানামা করছে। তবে সবচেয়ে বিপাকে পড়েছে সহায় সম্বলহীন হতদরিদ্র পরিবারগুলো। তারা শীত বস্ত্রের অভাবে খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করার চেষ্টা করতে গিয়েই দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে।

বিশেষ করে আগুন পোহানোর সময় অসাবধানতাবশত শাড়ির আঁচলে কিংবা কাপড়ে আগুন ধরে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হচ্ছেন নারী ও শিশুরা।

এ ব্যাপারে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের বিভাগীয় প্রধান সহকারী অধ্যাপক ডা. মারুফুল ইসলাম বলেন, শহরাঞ্চলের চেয়ে গ্রামাঞ্চলে শীতের তীব্রতা বেশি। হতদরিদ্র পরিবারগুলো শীত নিবারণ করতে আগুন তাপানোর কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে।

তিনি আরো জানান, গত বছর শীতে আগুন পোহাতে গিয়ে কমপক্ষে ১৬ জন মারা যায়। এছাড়া দগ্ধ হয়েছিল কমপক্ষে ৫০ জন। এবারো ওই ধরনের অগ্নিদগ্ধ রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। অসাবধানতা থেকেই এ ধরনের ঘটনা ঘটছে।

Print Friendly, PDF & Email