CC News

নীলফামারী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম‌্যান পদে ভোট হবে

 
 

সিসি নিউজ, ২৬ ফেব্রুয়ারী।। বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নীলফামারী সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঘোষিত চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের নৌকা প্রার্থী শাহিদ মাহমুদকে এবার নতুন আরেকটি আদেশে ভোটযুদ্ধে নামতে হচ্ছে। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আপিল কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসক মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করলেও নীলফামারী সদর উপজেলা পরিষদের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাদিক হোসেনের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করে প্রার্থীতা ফিরিয়ে দিতে নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের একটি বেঞ্চ। উচ্চ আদালতের এই আদেশের সার্টিফিকেট কপি সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজহারুল ইসলামের কাছে জমা দিয়েছে ওই প্রার্থী। উচ্চ আদালতের ওই আদেশে শাহিদ মাহমুদের বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় গনবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চেয়ারম্যান ঘোষনা বাতিল করা হচ্ছে। এতে এখানে চেয়ারম্যান পদে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
জানা যায়, প্রথম ধাপে ১০ মার্চ ভোট গ্রহন সামনে রেখে নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাচনে মনোনয়ন জমাদানের শেষ দিন ছিল ১১ ফেব্রুয়ারী। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহিদ মাহমুদ, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি এনপিপি প্রার্থী ফয়েজ আহমেদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মোট তিনজন মনোনয়ন জমা দেন। ১২ ফেব্রুয়ারী মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ের দিন ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী সাদিক হোসেনের মনোনয়ন বাতিল করেন রিটার্ণিং কর্মকর্তা। পরবর্তীতে প্রার্থীতা ফিরে পেতে ১৩ ফেব্রুয়ারী জেলা প্রশাসক ও আপিল কর্তৃপক্ষ নাজিয়া শিরিনের কাছে আপিল করেন সাদিক হোসেন। ১৪ ফেব্রুয়ারী আপিলের শুনানী শেষে জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন রিটার্নিং কর্মকর্তার আদেশ বহাল রাখেন।
অপর দিকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৮ ফেব্রুয়ারী এনপিপি প্রার্থী ফয়েজ আহমেদ তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেয়। ফলে একক প্রার্থী হিসেবে ২০ ফেব্রুয়ারী উপজেলা নির্বাচনের বিধিমালা ২০১৩ এ বিধি-২৪ এর উপবিধি(১) অনুযায়ী একমাত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহিদ মাহমুদকে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় চেয়ারম্যান ঘোষনা করা হয়।
এরপর প্রার্থীতা ফিরে পেতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাদিক হোসেন ২৪ ফেব্রুয়ারী রবিবার সকালে সুপ্রিম কোর্টের হাই কোর্ট ডিভিশনে একটি রিট পিটিশন করে। ওই দিন দুপুরেই বিচারপতি হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিব-আল-জলিলের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আপিল কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসকের মনোনয়ন বাতিলের আদেশটি স্থগিত করেন। একই সাথে সাদিক হোসেনের মনোনয়ন গ্রহণ করে বৈধ প্রার্থী হিসেবে প্রতীক বরাদ্দের নির্দেশ দেন।
এদিকে রিটকারীর আইনজীবী এ্যাডঃ নোমান হোসাইন তালুকদার বলেন, মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাই কোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিলের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ বৈধ প্রার্থী হিসেবে সাদিক হোসেনের মনোনয়ন গ্রহন করে প্রতীক বরাদ্দের নির্দেশ দিয়েছেন।
এ বিষয়ে সাদিক হোসেন বলেন, প্রার্থীতা ও প্রতীক বরাদ্দের আদেশসহ আইনজীবী কর্তৃক রায়ের সার্টিফিকেট কপি সোমবার রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দিয়েছি।
এ বিষয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বলেন, আইনজীবী কর্তৃক রায়ের সাটিফিকেট কপি ও প্রার্থীর আবেদন পেয়েছি। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনে জানানোর পর উচ্চ আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক পদক্ষেপ নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email