CC News

উইন্ডিজকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

 
 

সিসি নিউজ, ১৪ মে ।। উইন্ডিজকে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখে ট্রাইনেশনের ফাইনাল নিশ্চিত করলো বাংলাদেশ। বোলারদের পর ম্যাচে দাপট দেখালো ব্যাটসম্যানরাও। ক্যারিবীয়দের ২৪৮ রানের টার্গেট পাঁচ উইকেট হাতে রেখেই টপকেছে টাইগাররা।
ডাবলিনের ব্যাটিং ফ্রেন্ডলি উইকেটকে উইন্ডিজের জন্য কঠিন বানালো টাইগাররা বোলাররা। মাশরাফী-সাকিব-মুস্তাফিজদের বোলিংয়ে হাঁসফাঁস করতে হয়েছে ক্যারিবীয়দের। ইনিংস থেমেছে ২৪৭ রানে।
শুরুটা মাশরাফীর হাত ধরে। ওপেনার অ্যামব্রিসকে ফিরিয়ে প্রথম ধাক্কা দেন অধিনায়ক। ব্র্যাভোর উইকেটও পকেটে পুরতে পারতেন, কিন্তু সহজ ক্যাচ মিস করেন মিরাজ। প্রায়শ্চিত্ত করতেও অবশ্য সময় নেননি এই স্পিনার, এলবিডব্লিউ করে ফিরিয়েছেন ব্র্যাভোকে।
পাওয়ার প্লের পর অ্যাটাকে মুস্তাফিজ। জোড়া আঘাতে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত ফিজের, বিপদ বাড়ালেন ক্যারিবীয়দের।
জেসন হোল্ডারকে নিয়ে ইনিংস মেরামতের চেষ্টা চালান ইনফর্ম শেই হোপ। তাদের ১০০ রানের জুটি শঙ্কা জাগিয়েছিলো, কিন্তু মাশরাফী আবারও দায়িত্ব নিলেন, দুইজনকেই ফেরালেন। প্রথম ম্যাচের মতো এবারও তিন উইকেট মাশরাফীর।
শেষ ভাগে আবারও মুস্তাফিজের জোড়া আঘাত। এক উইকেট নিলেও কিপ্টে বোলিংয়ে ক্যারবীয়দের বেঁধে রাখার কাজ সারেন সাকিব।
মাঝারি টার্গেটে দুই সাবলীল দুই ওপেনার। তামিম-সৌম্য জুটিতে যোগ হয় ৫৪ রান। অ্যাশলে নার্সকে তেঁড়েফুঁড়ে মারতে এসেছে ২৩ রানে থামেন তামিম। তবে টানা দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নিতে ভুল হয়নি সৌম্যের। ৫৪ রান করে আউট হন তিনি সাকিবের সংগ্রহ ২৯ রান। এই দুইজনও নার্সের শিকার।
এরপর হাল ধরেন মুশফিক-মিঠুন। তবে দুটি সুযোগ পেয়েও ফিফটি করতে পারেননি মিঠুন, ফিরেছেন ৪৩ রান করে। ফিফটি করলেও আরও একবার ম্যাচ শেষ করে আসতে পারেননি মুশফিক। ৬৩ রান করে আউট হয়েছেন তাতে অবশ্য জয় পেতে সমস্যা হয়নি টাইগারদের।
ফাইনালে আবারও টাইগারদের প্রতিপক্ষ এই উইন্ডিজরাই।

Print Friendly, PDF & Email