• শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন |

‘মহানবী (সা.) মানবজাতির আদর্শ ও প্রেরণা’

Khaladaঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, মহানবি (সা.) মানবজাতির জন্য এক  উজ্জ্বল অনুসরণীয় আদর্শ ও প্রেরণা। সোমবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবি (সা.) উপলক্ষে দলের সহ-দফতর সম্পাদক মো. আব্দুল লতিফ জনি সাক্ষরিত এক বাণীতে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মহান আল্লাহ বিশ্বের রহমতস্বরূপ হজরত মুহাম্মদ (সা.) কে প্রেরণ করেন। বিশ্বনবীর আবির্ভাবে পৃথিবীতে মানুষ ইহলৌকিক ও পরলৌকিক জগতের মুক্তির সন্ধান পায় এবং নিজেদের কল্যাণ ও শান্তির নিশ্চয়তা লাভ করে। সমাজে বিদ্যমান শত অনাচার ও কদর্যতার গ্লানি  উপেক্ষা করে মহানবি মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ্‌ (সা.) মানুষের মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠা করেন।

বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, নিজ যোগ্যতা, সততা, মহানুভবতা, সহনশীলতা, কঠোর পরিশ্রম, আত্মপ্রত্যয়, অসীম সাহস, ধৈর্য, সৃৃষ্টিকর্তার প্রতি অগাধ বিশ্বাস, নিষ্ঠা ও অপরিসীম দুঃখ যন্ত্রণা ভোগ করে তার উপর অবতীর্ণ সর্বশ্রেষ্ঠ মহাগ্রন্থ আল-কোরআনের বাণী তথা তওহীদ প্রতিষ্ঠার মহান দায়িত্ব পালন করেন। তিনি আইয়ামে জাহেলিয়াতের অন্ধকার দূর করে অত্যাচার ও জুলুম-নির্যাতন বরণ করে সত্য ও ন্যায়কে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। সমাজে অবহেলিত, নির্যাতিত, বঞ্চিত ও দুঃখী মানুষের সেবা, একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন, পরমত সহিষ্ণুতা, দয়া ও ক্ষমাগুণ, শিশুদের প্রতি দায়িত্ব এবং নারী জাতির মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় মহানবি (সা.)-এর আদর্শ অতুলনীয়। তাই তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানব হিসেবে অভিষিক্ত।

আমি আল্লাহ রাব্বুল আল-আমিনের নিকট প্রার্থনা করি মহানবি (সা.)-এর শিক্ষা, আদর্শ ও ত্যাগের মহিমা আমরা সবাই যেন নিজেদের জীবনে প্রতিফলন ঘটাতে পারি। আমি পবিত্র মিলাদুন্নবি (সা.) উপলক্ষে বাংলাদেশসহ বিশ্বের মুসলিম ভাই-বোনদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আমি শেষ নবী সাইয়েদুল মুরসালিন হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি অসংখ্য দুরুদ ও তাঁর প্রতি সালাম জানাই। অপর এক বাণীতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশবাসীসহ মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও কল্যাণ কামনা  করে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ