• বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:৫৬ অপরাহ্ন |

খিলি পানের দামে কেজি আলু

Khansama news (potato) 21.01.14আমিনুল ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর): দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার চাষিরা অধিক মুনাফার আশায় ব্যাপক হারে চাষ করেছে সবজি জাতীয় ফসল আলু। ফলন ভালো হলেও আলু বর্তমানে মূল্যহীন হয়ে পড়েছে। বাজারে এক কেজি আলু বিক্রি করে কেনা যাচ্ছে মাত্র একটি পানের খিলি।
শুনে আশ্চর্য লাগলেও এমনি দাম রয়েছে খানসামার আলুর বাজারে। চাষিরা বলছেন, উৎপাদনের শুরুতে রাজনৈতিক অস্থিরতা থাকায় আগাম উৎপাদিত আলু সময় মত বিক্রি না হওয়ায় স্থানীয় বাজারে সয়লাব হয়েছে। অপরদিকে বেশি লাভের আশায় বাড়ির আনাচেকানাচে ব্যাপক হারে চাষকৃত আলুতে ভরে গেছে খানসামার চারপাশ। চাষিরা কেউ ঘরের ধান বিক্রি করে আবার কেউ সমিতিতে ঋণ নিয়ে আলু চাষের কাজে লাগিয়েছে। তারা অর্ধেক টাকা দিয়ে বাকিতে দোকান থেকে সার ও কীটনাশক নিয়ে জমিতে প্রয়োগ করে। বর্তমানে এসব আলুর বাজার দাম না থাকায় বিক্রি কিংবা শূন্য হাতে আলু তুলে ঘরে আনতেও পারছেনা অনেকে। এদিকে সার বিক্রেতারা বার বার বাকি টাকা পরিশোধের চাপ দেওয়ায় বাধ্য হয়ে চাষিরা আলু তুলে ক্রেতার সুবিধাজনক স্থানে পৌঁছে দিয়ে দাম নিচ্ছে ২-৩ টাকা কেজি দরে। যে দামে বাজারে একটি মাত্র পানের খিলি পাওয়া যায়। বিষয়টি চাষিদের কষ্টকর হলেও এতে আশ্চর্য রকমের মিল থাকায় এটি পানের খিলির সাথে তুলনা করছে চাষিরা। কোন কোন এলাকার আলুর কেজি যেমন ২-৩ টাকা, তেমনি কোন কোন হাটে পানের খিলির দামও ২-৩ টাকা।
উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, এ বছর উপজেলায় আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ হাজার ২৯ হেক্টর। কিন্তু চাষ হয়েছে ৩ হাজার ৪০৮ হেক্টর জমিতে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অনেক বেশি।
কথা হয়, গোয়ালডিহি গ্রামের আলুচাষী ইয়াসিন আলী ও নূর ইসলাম, মারগাঁও গ্রামের মোকার হোসেন, সাফিয়ার রহমন, দুবলিয়া গ্রামের নরেশ চন্দ্র রায়, দিলিপ দত্ত ও সাজ্জাদ হোসেন, আঙ্গারপাড়া গ্রামের আতিয়ার রহমান ও সুবাস চন্দ্রর সাথে। তারা বলেন, আলু চাষ করতে প্রতি বিঘা জমিতে খরচ হয়েছে প্রায় ২০ হাজার টাকা। উৎপাদন হয়েছে প্রায় ৮০ মন করে। বর্তমান পাইকারী ২-৩ টাকা দরে আলু বিক্রি করছি। ফলে, বিঘা প্রতি লোকসান গুণতে হচ্ছে ১০ থেকে ১২ হাজার। এ অবস্থায় আলু উত্তোলন ব্যয় করা কিংবা সারের দোকানে বাকি টাকা পরিশোধ দেয়াটাও দুস্কর হয়ে পড়েছে। তাই, আলুর এরকম বাজার মূল্য অব্যাহত থাকলে আগামীতে আর কেউ আলু চাষ করবেন না বলে জানান চাষিরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ