• রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:২৬ অপরাহ্ন |

শিল্পী সমিতি বিতর্কে শাকিব খান

shakib-khanঢাকা: দীর্ঘদিন ধরেই কথা উঠেছিল শাকিব খানের দায়িত্বজ্ঞান নিয়ে। প্রশ্ন উঠেছিল যিনি শিল্পী হিসেবে বরাবরের খামখেয়ালি আচরণে অভ্যস্ত, তিনি শিল্পী সমিতির দায়িত্বে এসে কতটা দায়িত্বশীল হবেন। প্রথমদিকে মিজু আহমেদ একাধিক ইন্টারভিউতে বলেছিলেন, ‘নিজের সময়জ্ঞান নিয়ে যার কোনো স্থিরতা নেই, তাকে নিয়ে সংগঠন হবে না।’ হয়েছেও তাই। সর্বশেষ গত ২২ জানুয়ারি পরিচালক মহম্মদ হান্নানের মৃত্যুতে তার জানাজায় না আসা নিয়ে সকলেই বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নির্মাতা শহীদুল ইসলাম খোকন বলেন, ‘এটা কোনোভাবেই উচিত হয়নি। দেশের যে প্রান্তেই থাকুক তার আসা উচিত ছিল। এটা আমাদের জন্য লজ্জার। আমি ধরেই নিচ্ছি, শাকিব আমার মৃত্যুর দিনও আনন্দের সাথেই শুটিংয়ে অংশ নেবে। এর চেয়ে বড় দুঃখের আর কী হতে পারে।’
চলচ্চিত্রাঙ্গনের অধিকাংশ শিল্পী-কুশলীই এ বিষয়ে নিজেদের ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন। কারণ এর আগে এ দেশের সেলুলয়েড সিরাজউদ্দৌলা আনোয়ার হোসেনের অসুস্থতার সময়েও প্রশ্ন উঠেছিল কিন্তু একটিবারের জন্য সৌজন্য দেখাটিও তিনি করেননি। বনশ্রী নামের এক শিল্পীর মানবেতর জীবন নিয়ে ইত্তেফাকসহ একাধিক পত্রিকায় রিপোর্ট হওয়া সত্ত্বেও শাকিব খান শিল্পী সমিতির নেতা হিসেবে কোনো উদ্যোগ নেননি। বর্তমানে অভিনেতা সাদেক বাচ্চু অসুস্থ অবস্থায় থাকা সত্ত্বেও সে বিষয়েও তার কোনো উদ্যোগের খবর পাওয়া যায়নি।
সবশেষে একজন গুণী পরিচালকের জানাজায় অংশ না নেওয়া এবং ন্যূনতম সাংগঠনিক শোক প্রকাশ না করায় সকলেই ব্যথিত হয়েছেন। অবশ্য শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিশা সওদাগর উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু তাকেও একাধিক সাংবাদিক শাকিবের বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বিব্রত হয়ে বলেন, ‘আমিও ঠিক জানতাম না যে এখানে শাকিব থাকবেন না। আমি তো মনে করি সংগঠনের চেয়েও ব্যক্তি শিল্পী সত্ত্বা অনেক বড়। আমি সেই ব্যক্তি বিবেচনাতেই সবসময় যতটুকু সম্ভব শিল্পীদের পাশে দাঁড়াবার চেষ্টা করি।’
উল্লেখ্য, শুধু শিল্পী সমিতি নয়, চলচ্চিত্রনির্ভর অন্য সকল সংগঠনই তাদের কর্মতত্পরতায় বার্ষিক বনভোজন ছাড়া কিছু করেনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ