• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন |

কর্নাই ও মহাদেবপুরে মানুষ নিরাপত্তা ও সহাবস্থানে বসবাস করতে চায়

Dinajpurমাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর: সারাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা, নির্যাতনের প্রকৃত ঘটনা উৎঘাটনে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া গঠিত চারটি তদন্ত কমিটির একটি প্রতিনিধি দল রবিবার দিনাজপুর সদর উপজেলার চেহেলগাজী ইউনিয়নের কর্নাই ও মহাদেবপুর সংখ্যালুঘু ও মুসলিম পরিবারের উপর হামলা, লুটপাট ও নির্যাতনের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
তদন্ত কমিটি দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে বিকেলে দিনাজপুর কর্নাই মোড়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের তদন্ত কমিটির আহবায়ক ও সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব এ এস এম আব্দুল হালিম বলেন, কর্নাই ও মহাদেবপুর গ্রামের ঘটনা সাম্প্রদায়িক ঘটনা নয়। সেখানে বসবাসকারী হিন্দু-মুসলিম পরিবারগুলো জানিয়েছেন এখানকার ঘটনা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক। ভোট দেয়া আর না দেয়া নিয়ে বিরোধ। প্রতিটি পরিবারের একটিই বক্তব্য আমরা নিরাপদে এবং পূর্বের অবস্থায় মিলে-মিশে বসবাস করতে চাই। এখানে কোন সাম্প্রদায়িক ঘটনা ঘটেনি। দীর্ঘ ৫০ বছরের মধ্যে এখানে সাম্প্রদায়িক কোন ঘটনা ঘটেনি। একটি মহল বিষয়টিকে অতিরঞ্জিত করে প্রচারনা চালাচ্ছে। যা দেশ ও জাতিকে বিশ্বের দরবারে হেয় পতিপন্ন করছে। কর্নাইয়ে যে কয়টি দোকান ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তার মধ্যে সিংহ ভাগই মুসলিম সম্প্রদায়ের। কর্নাই এলাকায় ুিহন্দু-মুসলিম পরিবারগুলোর মধ্যে অনেকটাই স্বাভাবিক অবস্থা পিলে এলেও মহাদেবপুরে মুসলিম পরিবার গুলোর মধ্যে চরম আতংক বিরাজ করছে। গ্রামটি এখনো পুরুষ শুন্য। পুরুষ মানুষ না থাকায় মহিলা ও শিশুরা মানবেতর জীবনযাপন করছে। মুসলিম অধ্যুষিত মহাদেবপুর গ্রামটির দিকে কেউ তাকাচ্ছে না। ফলে ওই গ্রামটির মানুষ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। তিনি বলেন, আমরা কিছু দিতে আসিনি। তবে ক্ষতিগ্রস্থ সকল পরিবারগুলোকে সহানুভুতি জানাতে এসেছি এবং সহমর্মিতা জানাতে এসেছি।
ড্যাবের মহাসচিব ও সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের সদস্য সচিব ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, এদেশের মানুষ চিরদিন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মধ্যে বসাবস করে আসছে। সাম্প্রদায়িকতার কোন স্থান নেই। যারা এই অনাকাংখিত ঘটনা ঘটিয়ে ফায়দা হাসিল করতে চায় তাদের সে আশা কোন দিনই পুরন হবে না। আমরা জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে তাদের নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালন করার আহবান জানাচ্ছি। আক্রান্ত পরিবারগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহবান জানাচ্ছি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য সচিব জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহম্মেদ, সাবেক উপমন্ত্রী গৌতম চক্রবর্তি ও ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম রিজু। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি লুৎফর রহমান মিন্টু, সাধারন সম্পাদক মুকুর চৌধুরী, জেলা আইনজীবী ফোরামের সভাপতি এ্যাড. আব্দুল হালিম, ড্যাব দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি ডা. হাফিজুর রহমান ও সাধারন সম্পাদক ডা. জিয়াউর রহমান জিয়া, ড্যাব নেতা ডা. সাদেক প্রমুখ। কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের অনুপস্থিতিতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হামিদুল ইসলাম, ও পুলিশ সুপার মোঃ রুহুল আমিন’র সাথে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় কমিটি ঘটনাস্থল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন এবং সেখানকার মানুষদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহবান জানান।
১৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি কর্নাই ও মহাদেবপুর গ্রামের হিন্দু ও মুসলিম পরিবারের লোকজনদের সাথে পৃথক পৃথক ভাবে কথা বলেন। কমিটি প্রকৃত ঘটনা কি ছিল তা বের করার চেষ্টা করেন। কমিটি জানায়, আমরা কনাই ও মহাদেবপুরের প্রকৃত ঘটনা সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন তৈরী করে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার কাছে হস্তান্তর করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ