• রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন |

দশম সংসদের যাত্রা শুরু হচ্ছে আজ

Parlament
সিসি নিউজ: বহুল আলোচিত দশম জাতীয় সংসদের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হচ্ছে আজ। বিএনপি-জামায়াত জোটের অংশ গ্রহণ ছাড়াই অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মধ্যদিয়ে গঠিত এই সংসদের প্রথম অধিবেশন বসবে আজ বুধবার সন্ধ্যা ৬টায়। ইতোমধ্যে সংসদ অধিবেশনকে সামনে রেখে আসন বন্টনসহ সকল প্রস্তুতি চূড়ান্ত করেছে সংসদ সচিবালয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, দীর্ঘ দুই যুগপর সংসদে নেই বিএনপি-জামায়াত জোটের কোন সদস্য। সংসদীয় গণতন্ত্র চালু হওয়ার পর সরকারী দলে না হলেও বিরোধী দলে ছিলো বিএনপি। আর ৬ষ্ট সংসদ ছাড়া অন্যান্য সংসদগুলোতে কম বেশী প্রতিনিধিত্ব ছিলো জামায়াতের। এবার প্রথম বিরোধী দলে এসেছে জাতীয় পার্টি।
অবশ্য সরকারেও তাদের প্রতিনিধিত্ব রয়েছে। ফলে দশম সংসদের কার্যক্রম হবে কিছুটা নতুন ধরণের। আর এই সংসদ পূর্ণ মেয়াদে কার্যকর রাখার অঙ্গীকার করেছে সরকার ও বিরোধী দলের সদস্যরা। এবিষয়ে দলীয় সদস্যদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
এবিষয়ে চাইলে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ বলেন, অতীতের সকল রের্কড ভঙ্গ করে সরকার, বিরোধীদল ও গণমাধ্যমের সহযোগিতায় সংসদকে কার্যকর রাখতে সর্বাত্বক চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। সংসদ জনগনের আশার প্রতিফলনের কেন্দ্রবিন্দু। তাই এ সংসদ হবে প্রাণবন্ত ও উজ্জ্বল।
তিনি আরও বলেন, বিরোধী দল জাতীয় পার্টি সরকারে ও বিরোধীদলে থাকলেও সংসদে সরকারের ভুল-ত্র“টির গঠনমূলক সমালোচনা ও বিরোধিতা  করবে।  জাতীয় পার্টি সরকারের সমালোচনা ও সংসদ কার্যকর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
সংসদ কার্যকর রাখার বিষয়ে অভিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়েছে এই প্রথম প্রধান বিরোধী দলের আসনে বসা জাতীয় পার্টি।
বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী জানান, আমরা সরকারের বিরোধিতার খাতিরে বিরোধিতা করবো না। সরকারের ভালো কাজে সমর্থন দেব। জনগণের স্বার্থবিরোধী কাজ হলে সংসদে তার প্রতিবাদ জানাবো। সংসদ বর্জনের অপসংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসে জাতিকে একটি কার্যকর সংসদ উপহার দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।
এদিকে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী মঙ্গলবার দুপুরে চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসে আসন বন্টনসহ দিনের কার্যসূচী চূড়ান্ত করেছেন। দিনের কার্যসূচী অনুযায়ী, আজ ডেপুটি স্পিকার কর্ণেল (অব.) শওকত আলী সংসদ অধিবেশন শুরু করবেন। স্পিকার পূনঃনির্বাচিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বিধায় ডেপুটি স্পিকার সংসদ অধিবেশন শুরু করবেন। এরপর স্পিকার ও ডেপুটি নির্বাচন করা হবে। নতুন স্পিকার শপথ নিয়ে সংসদ পরিচালনা করবেন। এরপর শোক প্রস্তাব উত্থাপন ও আলোচনা হবে।
চলতি সংসদের একজন সদস্য মারা যাওয়ায় শোক প্রস্তাব নিয়ে আলোচনার পর সংক্ষিপ্ত বিরতি দিয়ে আবারো অধিবেশন শুরু হবে। এরপর রাষ্ট্রপতির ভাষণ শেষে অধিবেশন মূলতবি করা হবে।
সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, এই সংসদে পাসের জন্য একটি মাত্র বিল জমা পড়েছে। বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট বিল, ২০১৪ নামের এই বিলটি আগামী সপ্তাহেই সংসদে উত্থাপন করা হবে। আর প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীদের জবাব দানের জন্য ইতিমধ্যেই পাঁচ শতাধিক প্রশ্ন জমা পড়েছে। তবে কোনো মূলতবি প্রস্তাব পড়েনি।
গত ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গঠিত দশম সংসদে এখন সদস্য সংখ্যা ২৯৭ জন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ২৩১ জন, জাতীয় পার্টির ৩৪ জন, স্বতন্ত্র ১৬ জন, ওয়ার্কার্স পার্টির ৬ জন, জাসদ (ইনুর) ৫ জন, তরিকত ফেডারেশনের দুই জন, জেপি (মঞ্জুর) দুই জন এবং বিএনফ’র একজন সদস্য রয়েছেন। গত ২৪ জানুয়ারি নবম সংসদের মেয়াদ শেষ হয়েছে। ২০০৯ সালের ২৫ জানুয়ারি এই সংসদের যাত্রা শুরু হয়।
একযুগ পর ব্যবহৃ হবে সংসদের প্রেসিডেন্ট প্লাজা
সংসদে ভাষন দেওয়ার জন্য দীর্ঘ এক যুগ পর জাতীয় সংসদ ভবনের প্রেসিডেন্ট প্লাজা ব্যবহার করবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সংসদ ভবনের স্থপতি লুই কান রাষ্ট্রপতিদের সংসদ কক্ষে প্রবেশের জন্য এই প্লাজা নির্মাণ করলেও দীর্ঘদিন তা অব্যবহৃত ছিল। সংসদ ভবনের উত্তর দিকে অবস্থিত এই প্লাজা বিশেষভাবে নির্মাণ করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্টরা জানান, সংসদের প্রথম ও বছরের প্রথম অধিবেশন এবং বাজেট অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি প্রবেশের জন্য এই প্লাজা নির্মাণ করা হয়। প্রায় ৬৫হাজার বর্গফুটের শ্বেত পাথরে নির্মিত এই প্লাজা দিয়ে ঢুকলে তিনতলায় অবস্থিত অধিবেশন কক্ষ পর্যন্ত শুধু হেটেই যেতে হয়। কিন্তু বিগত দুই যুগ ধরে এই প্লাজা ব্যবহার করতেন না রাষ্ট্রপতিরা। এর পরিবর্তে সংসদের ড্রাইভওয়ে দিয়ে প্রবেশ করে বিশেষ লিফটে সংসদ কক্ষে যেতেন তারা। ফলে লুই কানের ওই নকশা অব্যবহৃতই থাকতো। বিএনপি সরকারের আমলে ২০০২ সালের জানুয়ারি মাসে বছরের প্রথম অধিবেশন শুরুর দিন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট প্লাজা ব্যবহার করেছেন।
রাষ্ট্রপতি ভাষণ ও প্রবেশের সময় রেওয়াজ অনুযায়ী বিউগল বাজানোর প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত জিল্লুর রহমান সংসদে ভাষণ দেওয়ার সময় সারসংক্ষেপ পাঠ করতেন। কিন্তু বর্তমান রাষ্ট্রপতি তার ভাষণের পুরোটাই পড়বেন। আর তিনি বসে নয়, দাঁড়িয়েই ভাষণ দেবেন। তার ভাষণে ৫০ মিনিটের মতো সময় লাগবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ভাষণ চূড়ান্ত করার পাশাপাশি এসংক্রান্ত প্রস্তুতিও শেষ করা হয়েছে।
নিরাপত্তা জোরদার
সংসদ অধিবেশনকে সামনে রেখে সংসদ এলাকায় নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা বেষ্টনী গড়ে তোলা হয়েছে। এই এলাকায় জাতীয় সংসদের নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীদের পাশাপাশি অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়োগ করা হয়েছে। সংসদের ট্যানেল ও ড্রাইভওয়েতে যে কোন ধরণের গাড়ি রাখা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে দর্শনাথীদের মোবাইল নিয়ে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ভিআইপিদের মোবাইলও বিশেষ ভাবে পরীক্ষার জন্যও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
আজ শপথ অনুষ্ঠান
দশম জাতীয় সংসদে রংপুর-৬ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী আজ শপথ গ্রহণ করবেন। সকাল ১০ টায় জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকারের কার্যালয়ে এই শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। তিনি নিজে নিজেই শপথ গ্রহণ করবেন। তবে অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা একই হবে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নির্বাচনী ফলাফলের গেজেট সংসদ সচিবালয়ের পৌছানোর পর শপথ অনুষ্ঠানের সময়সূচী নির্ধারণ করা হয়।

rnews


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ